স্যোশাল মিডিয়ার কর্তৃপক্ষ দায় এড়াতে পারে না

আগের সংবাদ

আদিবাসীদের জন্য করোনাকালীন প্রণোদনা সহায়তার আহবান

পরের সংবাদ

তাগি বিক্রি করে সংসার চালায় সুপ্তন কাজী

প্রকাশিত: আগস্ট ৬, ২০২০ , ৭:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৬, ২০২০ , ৮:০০ অপরাহ্ণ

মনয়া তাগি (কায়তন) ভালো তাগি, আহা রে কি সুন্দর তাগি, তাগি নেও ভাই তাড়াতাড়ি, মাজায় দিলে শান্তি পাবে, মাত্র পাঁচ টাকায়! – এভাবে নেচে নেচে গান গেয়ে হাট ঘুরে তাগি বিক্রি করে সংসার চালায় বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার সুপ্তন কাজী।

গত ৫০ বছর ধরে এভাবে তাগি বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে। পিতার মৃত্যুর পর অভাবী সংসারের দ্বায়িত্ব আসে তার কাঁধে। সে মাঠে চাষের জমি না থাকায় ছোটবেলা থেকে অল্প পুঁজির এ ব্যবসা শুরু করে। এর পর থেকে শুরু হয় তার জীবন-জীবিকার কঠিন পথচলা।

সুপ্তন কাজী উপজেলার বেতিবুনিয়া গ্রামের মৃত সুন্দর কাজীর ছেলে। এখন আধুনিক যুগে মানুষের মধ্যে তাগির ব্যবহার কমে যাওয়ায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন।

চিতলমারী সদর বাজারে সুভাষ মজুমদার, ফারুক শেখ, লিটন বড়ালসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী জানায়, ছোটবেলা থেকে দেখছি, হাটের দিন সুপ্তন মিয়া নেচে-গেয়ে তাগি বিক্রি করে আসছে। জানিনা কিভাবে এই ছোট ব্যবসা দিয়ে তার সংসার চলে। সরকারি ভাবে তাকে একটা অনুদান দেয়া উচিত।

সুপ্তন কাজী বলেন, অভাবি পরিবার হওয়ায় খুব ছোটবেলা থেকে আমি এ ব্যবসা শুরু করি। এখন আধুনিক যুগের মানুষ আগের মতো তাগি ব্যবহার করে না।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়