করোনা-বন্যায় বিবর্ণ দিন মাঝিদের

আগের সংবাদ

শহীদ শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

পরের সংবাদ

বিধি মেনে চলেছে ট্রেন

প্রকাশিত: আগস্ট ৫, ২০২০ , ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৫, ২০২০ , ১:০৫ অপরাহ্ণ

রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশন আবারো সরগরম হয়ে উঠেছে। নাড়ির টানে করোনা উপেক্ষা করে গ্রামে পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদ কাটিয়ে এবার কর্মস্থল রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছে কর্মমুখী মানুষ। ঈদ উপলক্ষে ঈদ ও ঈদের পরের দিন রেল সার্ভিস বন্ধ থাকার পর গত সোমবার ও গতকাল মঙ্গলবার ট্রেনে করে রাজধানীতে হাজারো যাত্রীকে ফিরতে দেখা গেছে। গত সোমবার থেকে সরকারি ছুটি শেষে অফিস খোলা থাকায় গত দুদিনের টিকেটের চাহিদা ছিল তুঙ্গে। গত দুদিন ঈদফেরত যাত্রীদের কলরবে মুখরিত ছিল কমলাপুর রেল স্টেশন।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে সরেজমিন কমলাপুরে দেখা গেছে, এক একটি ট্রেন আসছে তো শত শত যাত্রী ট্রেনের ভিতর থেকে বের হয়ে দ্রুত পায়ে স্টেশন চত্বর ত্যাগ করে গন্তব্যের উদ্দেশে যাত্রা করছেন। সিএনজি ও রিকশা স্ট্যান্ডেও ভিড় দেখা গেছে। তবে প্রতিটি ট্রেন অর্ধেক যাত্রী বহন করায় অন্য বারের তুলনায় এবার কম ভিড় ছিল। আর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই রেল চলাচল করছে।

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক জানিয়েছেন, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন রেলসেবা বন্ধ থাকার পর গত ৩১ মে থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যের ১৭ জোড়া ট্রেন চলাচল করছে। এ মধ্যে ১২ জোড়া ট্রেন কমলাপুর থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে যাতায়াত করছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতি ২ সিটে ১ জন যাত্রী নেয়া হচ্ছে। ট্রেনের ভিতর ও স্টেশনে পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে। যাত্রীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। সেই সঙ্গে নিরাপত্তাকর্মী ও গার্ড সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডিউটি করছেন।

তিনি জানান, অন্য বার ঈদে রেলওয়ে ২ লাখের ওপর যাত্রী বহন করলেও এবার সারাদেশে ১৭ জোড়া ট্রেনে মাত্র ১৩-১৪ হাজার যাত্রী ছিল। ছাদে বা দাঁড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ ছিল না। যাত্রী ছাড়া কাউকে স্টেশনে ঢোকার অনুমতি দেয়া হয়নি। ট্রেনে কোনো হকারও ছিল না। ফলে এবারের রেলযাত্রা এবং রেলের সিডিউল সবই ঠিক আছে।

গতকাল সিলেট থেকে কালনী এক্সপ্রেস আসা যাত্রী বিচিত্রা রানী জানান, এবারের রেলযাত্রা একেবারেই অন্য রকম। ২ সিটে একজন বসিয়ে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি সবই বজায় রেখেছে রেলওয়ে। তাছাড়া ট্রেনের ভিতর, সিট, বাথরুম সবই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন। প্রত্যেক যাত্রী মাস্ক ও গ্লাভস পরিহিত থাকায় করোনা সংক্রমণ ভীতি অনেকাংশে কমছিল। ট্রেনটি সঠিক সময় কমলাপুরে এসে পৌঁছে। চট্টগ্রাম ও রাজশাহী থেকে আসা যাত্রীরা ট্রেনের এবারের স্বাস্থ্যবিধিসহ ব্যবস্থাপনায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়