গোবরের তৈরি ‘করোনা রাখি’

আগের সংবাদ

ঈদের দিন ইমামকে মারধর: বিএনপি নেতা গ্রেপ্তার

পরের সংবাদ

ঈদের নামাজ মিস করায় ইমামকে পেটালেন বিএনপি নেতা

প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২০ , ৬:০৩ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৩, ২০২০ , ৬:০৩ অপরাহ্ণ

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার নুরাবাদ ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি হাজী ফিরোজ কিবরিয়া কর্তৃক মসজিদের ভিতরে মুসল্লিদের সামনে ইমামকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার উপজেলার দুলারহাট থানাধীন নুরাবাদ সামছুল হক কমান্ডার বাড়ির দরজার জামে মসজিদে ঈদুল আযহা’র নামাজকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় স্থানীয় মুসল্লিদের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানিয় মুসল্লিরা অভিযোগ করেন, শুক্রবার জুমার নামাজের পূর্বে মসজিদে সভাপতি ও সম্পাদক কর্তৃক সকল মুসল্লিদের আলোচনা সাপেক্ষে পবিত্র ঈদুল আযহা’র নামাজের সময় সকাল সাড়ে ৮ নির্ধারণ করা হয়েছিল। সে অনুযায়ী ঈদের জামাত শুরু হয় সকাল পৌনে ৯ টায়। জামাত শেষ হওয়ার পর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ফিরোজ কিবরিয়া সকাল ৯টার সময় মসজিদে প্রবেশ ইমামকে বলেন, সকল জায়গায় জামাত শুরু হয় ৯টায় আপনি কেন জামাত করলেন পৌনে ৯টায়। এ নিয়ে কথা কাটা-কাটির এক পর্যায়ে ফিরোজ কিবরিয়া মসজিদের মিম্বারের সামনে ইমামকে মারধর করেন।

ইমাম মো. নুর হোসেন অভিযোগ করে বলেন, নির্দিষ্ট সময়ে ফিরোজ কিবরিয়া মসজিদে আসতে না পারায় ঈদের নামাজ জামাতের সহিত আদায় করতে পারেননি। এ নিয়ে ফিরোজ কিবরিয়া মসজিদের ভিতর মুসল্লিদের সামনে আমাকে মারধর করে। মারধর করার পর বাড়ী থেকে কামাল কমান্ডারের ছেলে ফারুক ও ফিরোজ কিবরিয়াসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আসলে মুসল্লিগণ তার কাছ থেকে এগুলো উদ্ধার করে।

এ নিয়ে দুলারহাট বাজারের সদর রোডে রবিবার বিকালে উত্তেজিত মুসল্লিসহ দুলারহাট থানা কওমী মাদ্রাসা ছাত্র কর্তৃক প্রতিবাদ মিছিল ও মানববন্ধন করে ফিরোজ কিবরিয়ার শাস্তি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ফিরোজ কিবরিয়া মুঠোফোনে প্রতিবেদককে বলেন, ইমামের সাথে বাকবিতণ্ডা হয়েছে তবে কোনো মারধরের ঘটনা ঘটেনি।

দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইকবাল হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়