কুয়াকাটা সৈকতে টোয়াকের পরিচ্ছন্নতা অভিযান

আগের সংবাদ

আড়াই মাস পর হাজারের কম রোগী শনাক্ত

পরের সংবাদ

যে দ্বীপে পুরুষের যাওয়া বারণ

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২, ২০২০ , ৫:৩৫ অপরাহ্ণ

অবকাশ যাপনের জন্য আইল্যান্ডগুলোর জনপ্রিয়তা সব সময়ই তুঙ্গে। ভ্রমণ পিয়াসুদের আনাগোনায় তাই আইল্যান্ডগুলো থাকে মুখরিত। ভাবুনতো কোনও এক নয়নাভিরাম দ্বীপে গেলেন অবকাশ যাপনে, কিন্তু সেখানে নেই কোনও পুরুষ। ভুলেও দৃষ্টি সীমানায় পড়ছে না কোনও পুরুষের ছায়া। হ্যাঁ, অবাক করা ব্যাপার হলেও সত্য যে সুপারশি আইল্যান্ড (SuperShe Island) নামের ফিনল্যান্ডের এক দ্বীপে পুরুষদের প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। আপনি যদি নারী হন শুধু তখনই চমৎকার এই দ্বীপটিতে আপনি প্রবেশ করতে পারবেন। শুধুই নারীদের জন্য সাজিয়ে তোলা ভিন্নধর্মী এই দ্বীপটি সম্পর্কে আসুন জেনে নেয়া যাক।

সুপারশি দ্বীপ বাল্টিক সাগরে ফিনল্যান্ডের উপকূলে অবস্থিত। এই দ্বীপের মালিক হলেন এক মার্কিন নারী যার নাম ক্রিস্টিনা রথ। তিনি পেশায় একজন বিজনেস কনসালট্যান্ট। এখন ভাবতে পারেন শুধুমাত্র নারীদের জন্য দ্বীপ গড়ে তোলার চিন্তা কেন তার মাথায় আসলো।

না, তিনি কোনও পুরুষবিদ্বেষী বা কট্টর নারীবাদী চিন্তা থেকে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেননি। একবার কোনও এক ছুটি কাটাতে গিয়ে ক্রিস্টিনা রথ খেয়াল করেন যে নারীরা কোনও সুদর্শন পুরুষ দেখলেই নিজেকে সাজাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন, আশেপাশে পুরুষ কাউকে দেখলেই সতর্ক হয়ে পড়েন নিজেদের পোশাক-আশাক নিয়ে।

সুপারশি আইল্যান্ড। ছবি : সুপারশি ডট কম

ছুটি কাটাতে এসে আশেপাশের সৌন্দর্য উপভোগ না করে, নিজের দিকে মনোযোগ না দিয়ে তারা ব্যস্ত থাকে পুরুষের মনোযোগের আকর্ষণে। এই ব্যাপারটি উপলব্ধির পর তার মাথায় আসে একটি দ্বীপ গড়ে তোলার যা শুধুই হবে নারীদের। যেখানে থাকবেনা কোনও পুরুষ, আর নারীরা নিজের স্বাধীন মতো অবকাশ যাপন করতে পারবেন। নিজের খেয়াল খুশি মতো চলাফেরা করতে পারবেন।

তার কিছুদিন পরই ক্রিস্টিনা খোঁজ পেয়ে যান এই দ্বীপটির। দ্বীপটি কিনে নিয়ে এটিকে বিলাসবহুল করে সাজিয়ে তোলেন শুধুমাত্র নারীদের অবকাশ যাপনের জন্য। নারীরা নিজের মতো থাকো, নিজের মতো বাঁচো, নিজের উপর মনোযোগ দেও- এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এই দ্বীপটিকে সাজিয়ে তুলেছেন ক্রিস্টিনা।

বিশ্বব্যাপী নারীদের জন্য একান্ত একটি জায়গার সন্ধান দিতে এবং তাদের মধ্যে যোগাযোগের সেতুবন্ধনের জন্য তার এই আয়োজন। নারীরা যারা চান সদলবলে বান্ধবীরা কোথাও আয়েশি ছুটি কাটাবেন অথবা গার্লস পার্টি কিংবা নিজের কোনও সাফল্য বান্ধবীদের নিয়ে সেলিব্রেট করবেন, তারা চলে যেতে পারেন এই দ্বীপে। হৈ-হুল্লোড় করে কোনও চিন্তা ছাড়া বান্ধবীদের নিয়ে কাটাবেন দারুণ এক অবকাশ। এই বিলাসবহুল দ্বীপে সদলবলে নারীরা নিজেদের মতো করে ছুটি কাটাতে পারবেন অপার আনন্দে।

এই দ্বীপে প্রবেশের একটিই শর্ত, তা হল আপনাকে নারী হতে হবে। দ্বীপটিতে একজনও পুরুষ নেই। আক্ষরিক অর্থেই দ্বীপটি ‘নো ম্যানস ল্যান্ড’। অভিনব এই দ্বীপে নারীরা দারুণ এক অবকাশ যাপনের সুযোগ পান। আশেপাশে কে আছে না আছে সব ভুলে গিয়ে নিজেদের মতো করে আনন্দে মেতে উঠতে পারেন।

সুপারশি আইল্যান্ডে একদল নারী পর্যটক। ছবি : সি এন বি সি ডট কম

এখানে গড়ে তোলা হয়েছে বিলাসবহুল রিসোর্ট। নানান সুযোগ-সুবিধার সাথে বিনোদনের বিভিন্ন সুযোগে পরিপূর্ণ এই দ্বীপটি নারীদের জন্য এক স্বর্গ। পুরুষের প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হওয়ায় এখানে নিরাপত্তা নিয়ে নেই কোনও ভাবনা। মনের আনন্দে এখানে নারীরা তাদের সম্পূর্ণ মনোযোগ নিজেদের দিকে দিতে পারেন।

জগতের সকল দুশ্চিন্তা কিছুদিনের জন্য ভুলে গিয়ে আনন্দে মেতে উঠার দারুণ এক সুযোগ তৈরি করেছে এই দ্বীপ। সম্পূর্ণ নিরাপদ এই দ্বীপে নারীরা নিজেদের নতুন করে আবিষ্কার করবেন এবং পুনর্জীবিত হয়ে উঠবেন। এখানে সব বয়সী নারীদের জন্য সুস্থতা, ফিটনেস এবং পুষ্টি বিষয়ক সচেতনতাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এখানে কাটিয়ে যাওয়া কয়েকটা দিন নিঃসন্দেহে তাদের মনোবল ও জীবনীশক্তি বৃদ্ধি করবে। পুরুষের সঙ্গ ছাড়াই বিলাসবহুল অবকাশের চমৎকার এই সুযোগটি যেকোনো নারীকে করে তুলবে আত্মবিশ্বাসী। এখানে নীল সমুদ্রের নিসর্গ ছাড়াও নারীদের জন্য নানান আয়োজন রাখা হয়েছে।

এই দ্বীপের রিসোর্টে আছে ১০টি গেস্ট কেবিন। কেবিনগুলো বিলাস বহুল আয়োজনে পরিপূর্ণ। রুমে বসেই বাল্টিক সাগরের ঢেউ উপভোগ করা যাবে। সাথে আছে একটি স্পা এবং বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভেঞ্চারের ব্যবস্থা। সেই সাথে প্রতিদিন নানান ফিটনেস ও রান্নার কোর্স করার ব্যবস্থা থাকছে। এছাড়াও আছে যোগ ব্যায়াম ও মেডিটেশনের ক্লাস। আর নানা স্বাদের খাবারের আয়োজন তো আছেই।

এই দ্বীপের টিকিট কাটার আগে ইন্টারনেটে সাক্ষাৎকার দিতে হয়। স্কাইপের মাধ্যমে দিতে হবে এই সাক্ষাৎকার। এরপরই দ্বীপে ঢোকার অনুমতি মিলবে। নারীদের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে পাঁচদিনের জন্য থাকতে হলে খরচ পরবে ৩ হাজার ইউএস ডলার থেকে ৬ হাজার ইউএস ডলার। অর্থাৎ প্রায় আড়াই লাখ টাকার মত খরচ পড়বে এই দ্বীপটিতে থাকতে। -ট্রাভেল বাংলাদেশ।

পিআর