প্রকৃতির অপরূপ বিস্ময়কর দৃশ্য

আগের সংবাদ

করোনা ঠেকাতে বিশ্বজুড়ে বিচিত্র মাস্ক

পরের সংবাদ

উৎসবে উড়ে বেড়ান মুক্ত আকাশে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১, ২০২০ , ৬:০৪ অপরাহ্ণ

মুক্ত আকাশে উড়ে পৃথিবীর বৈচিত্র যখন এক পলকে দেখা যায়, সে সৌন্দর্য মাটিতে দাঁড়িয়ে শুধু কল্পনাই করা যায়। যে সৌন্দর্য হয়তো আমরা কাছ থেকে অনুভব করতে পারি না।  আর পাখা মেলে উড়ে বেড়ানো পাখিগুলো আমাদেরকে যেন সে স্বাধীন উড়ে বেড়ানোর লালসা আরও বাড়িয়ে দেয়। তাই মাটির বাসিন্দা হয়ে আকাশকে দাঁপিয়ে বেড়ানোর জন্য মানুষের নানা আয়োজন। ঈদকে কেন্দ্র করে পরিবার নিয়ে সবাই চায় একটু ভ্রমণ, একসাথে আনন্দ করা, ব্যস্ত জীবনের বাইরে গিয়ে একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে। তবে করোনার কারণে এসব হয়তো হয়ে উঠছে না। এবার আপনাদের জানাবো এমন এক ভ্রমণের কথা, যার কথা শুনলে যাওয়ার জন্য মন ব্যাকুল হবেই। যেহেতেকু করোনার কারণে এখন আর হয়ে উঠছে না, আবার বড় বাজেটেরও ব্যাপার তো থেকেই যায়। তাই পরের ঈদে যেতে পারবেন এমন প্রস্তুতি নিতে শুরু করুন এখনই।

ছেলেবেলায় বেলুন নিয়ে সবাই খেলতে পছন্দ করে। তবে, বেলুন মানুষকে আকাশেও নিয়ে যায়। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে উৎসব করে বেলুনে চড়ে আকাশে উড়ে বেড়ায় মানুষ। হট এয়ার বেলুনের সাথে অনেক আগ থেকেই মানুষ পরিচিত হলেও বিশ্বব্যাপী এর পরিচিতি ও ব্যবহার তেমন নেই।

সাগা ইন্টারন্যাশনাল বেলুন উৎসব, জাপান/ ছবি: ফুকুয়াকা নাউ

১৯৭৮ সালে কিওসু’তে প্রথম বেলুন উৎসব শুরু করে জাপান। প্রতিবছর শরৎকালে আয়োজিত এই উৎসবে সুইজারল্যান্ড, বেলজিয়াম, যুক্তরাষ্ট্র থেকে অনেক প্রতিযোগী যোগ দেয়। প্রতিযোগিতা ছাড়াও উৎসবটির মূল আকর্ষণ হলো রাতের আকাশে রঙিন বেলুন।

রঙিন এই রাতের আকাশে অসংখ্য গরম বাতাসের বেলুন উড়িয়ে দেয়া হয়। বেলুন ছাড়াও আতশবাজি ও সঙ্গীতের সাথে সময়কে উপভোগ করতেই অনেকেই উৎসবটিতে যোগ দেয়।

তাইতুঙ আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল/ ছবি: তাইওয়ান সিন

তাইওয়ানে প্রতিবছর গ্রীষ্মের সময় আয়োজন করা হয় তাইতুঙ আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল। এক মাসব্যাপী পালিত এই ফেস্টিভ্যালে রঙিন ও কার্টুন চরিত্র নির্ভর অসংখ্য হট এয়ার বেলুন আকাশে ভাসতে থাকে। যদি আপনি চান এসব রঙিন হট এয়ার বেলুনে আপনিও ভেসে বেড়াবেন আকাশে তার জন্য আপনাকে কমপক্ষে এক মাস আগেই বুকিং সেরে ফেলতে হবে।

আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল, ফিলিপাইন/ ছবি: উইকিওয়ান্ড

ফিলিপাইনে আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল সাধারণত জানুয়ারি- ফেব্রুয়ারি মাসের ভেতরেই হয়ে থাকে। চার দিনব্যাপী আয়োজিত এই উৎসব ফিলিপাইনের সবচেয়ে বিখ্যাত স্পোর্ট ফেস্টিভ্যাল। ১৯৯৪ সালে যখন প্রথম এই ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করা হয়, তখন এর মূল লক্ষ্য ছিলও ফিলিপাইনের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করা।

সময়ের সাথে সাথে ফেস্টিভ্যালটিতে আরও নানা অনুষঙ্গ যুক্ত হয়েছে যেমন – স্কাইডাইভিং, রিমোট কন্ট্রোল হেলিকপ্টার প্রদর্শনী। এশিয়া ও ইউরোপ থেকে পর্যটকদের পাশাপাশি অসংখ্য পাইলট ফেস্টিভ্যালে যোগ দেয়।

ব্রিস্টল আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল, ইংল্যান্ড/ ছবি: দ্যা মিরর

পরিবারের সাথে সময় উপভোগের জন্য ব্রিস্টল আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল খুব বিখ্যাত। তিন দিনব্যাপী আয়োজিত এই উৎসব সাধারণত প্রতি বছর আগস্ট মাসে আয়োজন করা হয়ে থাকে। শিশুদের বিনোদনের জন্য ফেস্টিভ্যাল প্রবেশ উন্মুক্ত রাখা হয়।

ফেস্টিভ্যালের সবচেয়ে উপভোগ্য ঘটনা ঘটে রাতে, যখন রাতের আকাশে আতশবাজি ঝলমল করতে থাকে এবং হট এয়ার বেলুনে করে রাতের আকাশের সেই ঝলমল চেহারা দেখা যায়।

আলবাকার্কি আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যাল, নিউ মেক্সিকো/ ছবি: ভিজিট আলবাকার্কি

প্রতি বছর অক্টোবর মাসে বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ বেলুন উৎসবের আয়োজন করে মেক্সিকো। ১৯৭২ সালে মাত্র ১৩টি হট এয়ার বেলুন আকাশে উড়িয়ে এর যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে আলবাকার্কি আন্তর্জাতিক বেলুন ফেস্টিভ্যালে পাঁচশত এর বেশি হট এয়ার বেলুন আকাশে ওড়ে।

যেহেতু বিশ্বের সবচেয়ে বড় বেলুন উৎসব তাই এর ভাবগাম্ভীর্যও বিশেষ গুরুত্ব পায়। রঙিন বেলুন থেকে শুরু করে বিভিন্ন কার্টুন চরিত্র, ইতিহাসের বিখ্যাত ব্যক্তি, জীবজন্তু সবকিছু যেন জীবন্ত হয়ে ওঠে বেলুনের মধ্যদিয়ে। ৩৬৫ একর এলাকাজুড়ে নির্মিত বেলুন ফিয়েস্তা পার্কে আকর্ষণীয় বেলুন দেখতে জড়ো হয় শত শত দর্শক।

এমআই