বিদেশগামীদের নেগেটিভ সনদ বাধ্যতামূলক নয়

আগের সংবাদ

যেসব অনলাইন নিবন্ধন পেল

পরের সংবাদ

নিবন্ধন পেল ‘ভোরের কাগজ’ ও ‘দিনের শেষে’

প্রকাশিত: জুলাই ৩১, ২০২০ , ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৩১, ২০২০ , ১:১৫ পূর্বাহ্ণ

ঐতিহ্যবাহী জাতীয় দৈনিক ভোরের কাগজ ও দিনের শেষেসহ ৩৪টি অনলাইন নিউজপোর্টাল এবং ১০টি পত্রিকার অনলাইন নিবন্ধন পেয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থার ইতিবাচক রিপোর্ট পাওয়ার ভিত্তিতে এসব অনলাইন নিউজ পোর্টালকে নিবন্ধনের জন্য নির্বাচিত করেছে সরকার।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) এসব নিউজ পোর্টালগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) একটি চলমান প্রক্রিয়া। যে সমস্ত অনলাইন নিউজ পোর্টালের পক্ষে সরকার নির্ধারিত সংস্থাসমূহের অনাপত্তি পাওয়া গেছে, শুধুমাত্র সেইগুলির তালিকা প্রকাশ করা হলো এবং তাদের প্রাথমিক রেজিস্ট্রেশনের অনুমতি দেয়া হলো।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তথ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মীর আকরাম উদ্দীন আহম্মদ। এর আগে দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ নিবন্ধন শুরুর ঘোষণা দেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, অনাপত্তিপ্রাপ্ত নিউজপোর্টালগুলোকে সরকারি বিধি-বিধান অনুসরণ করে নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখ থেকে ২০ কার্যদিবসের মধ্যে নিবন্ধন সম্পন্ন করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী ও জনপ্রিয় সংবাদপত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম দৈনিক ভোরের কাগজ। ঢাকা থেকে প্রকাশিত এই পত্রিকাটির সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন শ্যামল দত্ত। জাতীয় এ দৈনিকটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৯২ সালে। ব্রডশিট ফরমেটে ছাপা পত্রিকাটির প্রকাশক রাজনীতিবিদ সাবের হোসেন চৌধুরী।

ঐতিহ্যবাহী ভোরের কাগজ পত্রিকাটির সমৃদ্ধ অনলাইন সবার দৃষ্টি কেড়েছে। আধুনিক দৃষ্টিভঙ্গি ও প্রযুক্তির উৎকর্ষতার ছোঁয়ায় ভোরের কাগজ অনলাইন এখন বৈচিত্রে প্রথম সারিতে। ভোরের কাগজ পত্রিকার প্রধান কার্যালয় রাজধানীর মালিবাগে অবস্থিত।

দেশের প্রথম মিড ডে দৈনিক দিনের শেষে। এক সময় জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা ‘দিনের শেষে’ পত্রিকার বর্তমান অনলাইন ভার্সন আরো বৈচিত্রময় এবং সমৃদ্ধ।

এনএম

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়