শোকের মাসে বঙ্গবন্ধুর নামে চাঁদাবাজি করলে ব্যবস্থা

আগের সংবাদ

সড়ক নয় এ যেন মৃত্যুপথ! 

পরের সংবাদ

ডিজিটাল সনদে পণ্য খালাস হবে ৬ মাসে

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ৩১, ২০২০ , ৩:০০ অপরাহ্ণ

ইলেকট্রনিক চালান বা ডিজিটাল সনদে আমদানি পণ্য শুল্কায়ন ও খালাসের সময় ছয় মাস বাড়িয়েছে কাস্টম কর্তৃপক্ষ। মহামারি করোনার কারণে গত ৩০ জুন পর্যন্ত এ সুবিধা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ সুবিধা পাবেন আমদানিকারকরা।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব (কাস্টমস : আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও চুক্তি) আকতার হোসেন স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় এ আদেশ দেয়া হয়েছে। ফলে এখন থেকে দক্ষিণ এশীয় মুক্তবাণিজ্য চুক্তির (সাফটা) আওতায় ইস্যুকৃত সার্টিফিকেট অব অরজিনের (উদ্যোক্তা সনদ) ডিজিটাল স্বাক্ষর কপি গ্রহণ করে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত পণ্য চালান শুল্কায়ন ও ছাড় করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সাফটার আওতায় পণ্য আমদানিতে বেশকিছু শর্ত রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো যে দেশ থেকে পণ্য আসবে সে দেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের স্বাক্ষরযুক্ত মূল কপি আমদানিকারককে স্ব স্ব কাস্টম হাউসে অন্যান্য কাগজপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে। সেই সঙ্গে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অনলাইনেও একটি স্বাক্ষরযুক্ত কপি পাঠাতে হয়। এতদিন করোনা প্রার্দুভাবের আগে এভাবে পণ্য চালান খালাস হচ্ছিল কাস্টম হাউস থেকে। কিন্তু করোনার কারণে বিভিন্ন অফিসের কার্যক্রম অনলাইনে হওয়ায় এ শর্ত শিথিল করে গত ৩০ জুন পর্যন্ত ডিজিটাল সনদে আমদানি পণ্য খালাসের সুবিধা দেয় কাস্টম কর্তৃপক্ষ। কিন্তু পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় সময় বাড়িয়ে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সুযোগ দেয়া হয়েছে। ২৯ জুলাই জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সাফটার আওতায় ইস্যুকৃত সার্টিফিকেট অব অরজিনের ইলেক্ট্রনিক কপি গ্রহণ করে সাময়িক শুল্কায়নের মাধ্যমে পণ্য চালান শুল্কায়ন ও ছাড়করণে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল যার কার্যকরিতা ছিল ৩০ জুন পর্যন্ত। কিন্তু দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় আন্তঃদেশীয় বাণিজ্য সচল রাখতে সার্টিফিকেট অব অরজিনের ইলেক্ট্রনিক কপি গ্রহণ করে পণ্যের চালান শুল্কায়ন ও ছাড়করণের নির্দেশনা আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হলো। একই সঙ্গে ইলেকট্রনিক কপি সংশ্লিষ্ট দেশের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট থেকে যাচাই এবং কাস্টম হাউস নমুনা স্বাক্ষর সার্টিফিকেটের স্বাক্ষর যাচাই করে পণ্য চালান শুল্কায়ন ও ছাড়করণে নির্দেশ দিয়েছে এনবিআর।

জানা গেছে, গত প্রায় এক মাস ডিজিটাল স্বাক্ষর কপি গ্রহণ না করায় দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোল কাস্টমে অনেক পণ্যের চালান আটকা পড়ে। ফলে সময় মতো পণ্যের চালান খালাস করতে না পেরে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েন দেশের বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান ও আমদানিকারকরা। এ কারণে আমদানি বাণিজ্য সচল রাখতে ব্যবসায়ীরা ইলেক্ট্রনিক কপি গ্রহণের দাবি জানিয়েছে আসছিল। তাদের দাবি ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে এ সুযোগ দিল এনবিআর।

এসএইচ