ভার্চ্যুয়াল আদালতে ৬৯৮ শিশুর জামিন

আগের সংবাদ

করোনায় প্রাণ কেড়ে নিল আরও ৩৭ জনের

পরের সংবাদ

উচ্ছেদ আতঙ্কে ভূমির মালিক

আদালতের নির্দেশ মানছেন না ভূমি কর্মকর্তা

প্রকাশিত: জুলাই ১৯, ২০২০ , ২:২৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ১৯, ২০২০ , ২:৩৪ অপরাহ্ণ

শেরপুরের নালিতাবড়িতে আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে ভূমির মালিককে হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। ভূমির মালিক মাহবুবুর রহমান মিলন গংরা আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন। ঘটনাটি ঘটে, শেরপুরের নালিতাবাড়ি উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের টেংরাখালি মোড়ে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের মাহবুবুর রহমান মিলন গংরা পৈতৃক সূত্রে প্রাপ্ত রাজনগর মৌজার রেকর্ডিও জমিতে দোকানপাট নির্মার্ণ করে ভোগদখল করে আসছেন। কিন্তু ওই দাগে ২৫ শতাংশ জমি দাবি করে আসছিল ইউনিয়ন ভূমি অফিস।

এ নিয়ে জমির মালিক পক্ষ মাহবুবুর রহমান মিলন গংরা উক্ত জমির উপর চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার দাবিতে নালিতাবাড়ি সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে সম্প্রতি একটি মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলার বলে আদালত ওই ৪৫ শতাংশ জমির উপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার নির্দেশ দেন। কিন্তু আদালতের ওই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে রাজনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র শাহা জমির উপর থেকে স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছেন। এতে ভূমির মালিক মাহবুবুর রহমান মিলন গংরা আতঙ্কের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন।

মাহবুবুর রহমান মিলন জানান, সরকার পক্ষ যে ২৫ শতাংশ জমি দাবি করে আসছেন উক্ত জমি তাদের দখলে নেই। ভূমি অফিসের দাবি অনুযায়ী, উল্লেখিত ২৫ শতাংশ ভূমি পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। তার দাবি, ভূমি কর্মকর্তা তাদের সঙ্গে গায়ে পড়ে ঝগড়া করার উদ্দেশ্যেই এমনটা করছেন। তাদের দখলে সরকারি কোনো জমি নেই।

রাজনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র শাহা বলেন, মাহবুবুর রহমান মিলনের নিষেধাজ্ঞা মামলার বিপক্ষে আপিল করে সরকার পক্ষ রায় পেয়েছে। এ কারণেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী, মাহবুবুর রহমান মিলন গংদের দখলীয় জমির উপর থেকে স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য মৌখিকভাবে বলা হয়েছে। তাদের কোনো হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানো হয়নি।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়