করোনায় জীবন দিলেন আরো এক পুলিশ সদস্য

আগের সংবাদ

নতুন অর্থবছরের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা ৪৮ বিলিয়ন ডলার

পরের সংবাদ

সপরিবারে হোম কোয়ারেন্টিনে সৌরভ

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১৬, ২০২০ , ২:১১ অপরাহ্ণ

করোনায় আক্রান্ত না হয়েও বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি পুরো পরিবার সহ হোম কোয়ারান্টিনে গেছেন। মুলত তার ভাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল (সিএবি) যুগ্ম সচিব স্নেহাশিস গাঙ্গুলি করোনা পজিটিভ হওয়ায় নিয়মানুযায়ী সপরিবারে বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে ভারতের সাবেক এই অধিনায়ককে।

এর আগে গত জুনে প্রানঘাতি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভের বউদি অর্থাৎ স্নেহাশিসের স্ত্রী। এবার কলকাতা মহারাজের ভাই স্নেহাশিসের শরীরেও ভাইরাস বাসা বেঁধেছে বলে সিএবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। স্নেহাশিস গাঙ্গুলিকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই তার শরীরে জ্বর ছিল। এক মাস আগে স্ত্রীর সঙ্গে তিনিও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, এমন খবর উড়িয়ে দিয়েছিলেন স্নেহাশিস নিজে। আক্রান্ত স্ত্রী, শ্বশুর এবং শাশুড়িকে মোমিনপুরের বাড়িতে রেখে বেহালার পৈতৃক বাড়িতে চলে এসেছিলেন সিএবি সচিব। করোনায় সংক্রামিত স্নেহাশিসকে সেই বাড়ি থেকে দক্ষিণ কলকাতার বেল ভিউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সৌরভের দাদার সংক্রমণের শিকার হওয়ায় উদ্বেগ বাড়ছে সাধারণ মানুষের।

ভাইয়ের করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় সৌরভকে নির্ধারিত স্বাস্থ্য বিধি মেনে বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলেছে প্রশাসন। মহারাজের স্ত্রী ডোনা, মেয়ে সানা এবং মাকেও বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে সিএবি-এর তরফে জানানো হয়েছে। স্নেহাশিসের আগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন সিএবির সিনিয়র নির্বাচক তথা প্রাক্তন ক্রিকেটার সাগরময় সেন শর্মা। রাজ্যের এক সিনিয়র আম্পায়ারের শরীরেও মিলিছে মারণ ভাইরাস।

বিশ্বের ২১৩টি দেশের প্রায় ১৩ কোটি ৭০ লক্ষ মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় পাঁচ লক্ষ নব্বই হাজার মানুষ। ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯ লক্ষ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২৫ হাজার মানুষের। পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় এক হাজার মানুষ। ১৫ জুলাইয়ের (বুধবার) হিসেব অনুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা দেড় হাজার ছাড়িয়েছে৷ তবে একদিনের হিসেবে মৃতের সংখ্যা কমেছে৷ রাজ্য স্বাস্থ্যভবনের বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫৮৯ জন৷ গতকাল ছিল ১,৩৯০ জনে৷ এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৪,৪২৭।

ডিসি