সিসিমপুরের গল্প নিয়ে দুরন্ত টিভিতে ‘রংবেরঙের গল্প’

আগের সংবাদ

বাঁধ ভেঙে যোগাযোগ বিছিন্ন, পানিবন্দি ২০ হাজার পরিবার

পরের সংবাদ

মানিকগঞ্জে বাবা’র বাড়িতে মমতাজের মিউজিয়াম

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১৬, ২০২০ , ৩:২৪ অপরাহ্ণ

বাউল সম্রাজ্ঞী ও সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম তার বাবার বাড়ি মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরের জয়মন্টবের ভাকুম গ্রামে গড়ে তুলছেন একটি মিউজিয়াম। বেশ কিছুদিন আগেই মমতাজের সার্বিক তত্ত্বাবধানে মমতাজের নিজস্ব অর্থায়নে এই মিউজিয়াম নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।

ভাকুম গ্রামে যদিও এরইমধ্যে তার বাবার নামে মধুর মঞ্চ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তার পাশেই একই স্থানে মমতাজ মিউজিয়ামটি গড়ে তুলছেন। করোনার এই ক্রান্তিকালে মমতাজ এলাকার মানুষের পাশে নিত্য থাকার পাশাপাশি মিউজিয়ামটির নির্মান কাজ নিজেই তাদরকি করছেন। বলা যায় বর্তমানে প্রায় পুরোটা সময়ই মমতাজ তার নিজ গ্রামের বাড়িতে অবস্থান করছেন। সেখানে তিনি তার মা উজালা বেগম ও তার সন্তানদের নিয়ে একান্তে সময় কাটাচ্ছেন।

মমতাজ বলেন,‘ সত্যি বলতে কী জীবনে আর কখনো এভাবে সময় কাটানোর সুযোগ আসবে কী না কে জানে। তাই এই সময়টাতে নিজের গ্রামেই কাটাচ্ছি, এলাকার মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকছি। আমার দীর্ঘদিনের ইচ্ছে ছিলো ভাকুম গ্রামে একটি মিউজিয়াম গড়ে তোলার।এসই লক্ষ্যেই দ্রুত গতিতে নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে মিউজিয়ামটির। মিউজিয়ামে আমার বাবার বিভিন্ন ধরনের স্মৃতিচিহ্ন থাকার পাশাপাশি আমার বিভিন্ন সময়ের নানান ধরনের ক্যাসেট, সিডি, বিভিন্ন ধরনের যন্ত্র, বাউল জীবন সংশ্লিষ্ট নানান ধরনের জিনিসপত্র, আমার ব্যবহৃত নানান ধরনের আসবাবপত্র, বাউল জীবন সম্পর্কিত নানান ধরনের বই, কিতাব’সহ আরো অনেককিছুই স্থান পাবে মিউজিয়ামটিতে। আমাদের বাউল জীবন সম্পর্কে যে কারো জানার আগ্রহকে পরিপূর্ণভাবে যেন সহযোগিতা করতে পারে এই মিউজিয়ামটি সেই লক্ষ্যেই এটি করা হচ্ছে। পাশাপাশি এই মিউজিয়ামে প্রবেশ করেই যেন যে কেউ বাউলশিল্পী মমতাজ সম্পর্কে একটি সুস্পষ্ট ধারনা পেতে পারেন। একদিন হয়তো আমি থাকবোনা, কিন্তু থেকে যাবে যুগের পর যুগ এই মিউজিয়াম, থেকে যাবে আমার কর্মের স্মৃতিচিহ্ন। আমার সন্তানেরা এর দেখভাল করবে। তাদের শ্রদ্ধায় আর আমার শ্রোতা ভক্তদের মাঝেই আমি বেঁচে থাকবো।’ মমতাজ জানান মিউজিয়ামটির কাজ শেষ বেশ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে এর অভিষেক করবেন।

উল্লেখ্য মমতাজের জন্ম রাজধানীর শ্যামলী’তে। তবে তার বেড়ে উঠা তার বাবার বাড়ি ভাকুম গ্রামেই। মমতাজ জানান, মিউজিয়ামটির নামকরণ এখনো করা হয়নি।

ডিসি