নেপথ্য গডফাদাররা কেন ধরা-ছোঁয়ার বাইরে?

আগের সংবাদ

ইংল্যান্ড হারায় মাতামাতি নেই ইংলিশ মিডিয়ায়

পরের সংবাদ

দোয়ারায় দ্বিতীয় দফায় বন্যা, পানিবন্দি অর্ধলক্ষাধিক পরিবার

দোয়ারাবাজার(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১৩, ২০২০ , ২:০২ অপরাহ্ণ

এমনিতেই করোনা মহামারীর কারণে নিম্ন আয়ের মানুষেরা কর্মহীন হয়ে পরেছেন অন্যদিকে বন্যার থাবা। সকল বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। আমন ক্ষেতের বীজতলা হারিয়ে এখন কৃষকরা দিশেহারা। গত পাঁচদিন ধরে দোয়ারাবাজার উপজেলায় পানি বৃদ্ধির কারণে নতুন-নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ৯ টি ইউনিয়নের প্রায় কয়েক হাজার পরিবারের মানুষ এখন পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এসব মানুষের বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

উপজেলার প্লাবিত নতুন নতুন ইউনিয়ন হচ্ছে দোহালীয়া, পান্ডারগাঁও ও মান্নারগাঁও ইউনিয়নের বেশিরভাগ গ্রামের ঘর বাড়িতে এবারের বন্যায় প্লাবিত হয়েছে।

দোহালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আনোয়ার মিয়া আনু বলেন আমার ইউনিয়নের শতকরা ৮০ভাগ পরিবারের বসতঘরে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। পাশাপাশি ছাতক-সুনামগঞ্জ সড়কের তিনটি স্থানে ভাঙ্গনের ফলে যোগাযোগ ব্যাবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স সহ প্রতিটি বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে খোলা রাখা হয়েছে। পানিবন্দি জনগনের তিনি সার্বক্ষনিক খোজ খবর নিচ্ছেন বলে জানান।
দোয়ারাবাজার সদর ইউনিয়নের ও সুরমা ইউনিয়ন আশিভাগ গ্রামের বাড়িঘরে পানি প্রবেশ করেছে। নরসিংপুর ইউনিয়ন, বাংলাবাজার ইউনিয়ন, বোগলাবাজার ইউনিয়ন ও লক্ষিপুর ইউনিয়নের প্রায় ৫০ ভাগ গ্রামের মানুষ পানিবন্দি রয়েছেন। একই সাথে উপজেলার সব সকল ঘরবাড়ি, স্কুল, মসজিদ, রাস্তা ঘাট, আউশ ক্ষেত, বীজতলা ও মাছের খামার তলিয়ে গেছে। কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কে পানি উঠে যাওয়ায় বিচ্ছিন্ন হয়েছে পড়েছে যোগাযোগ ব্যাবস্থা।
মাজেরগাঁও গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরুল ইসলাম বলেন, বিগত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় বন্যা হয়েছে এবছর। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সরকারের পাশাপাশি বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানাব তিনি।

দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুর রহিম বলেন, বন্যাকবলিত এলাকার সার্বক্ষণিক খবরা-খবর রাখা হচ্ছে। প্রথম বন্যায় (গত ২৮ জুন) বন্যাকবলিত এলাকার বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণসামগ্রীর দেওয়া হয়েছে। বন্যা মোকাবেলায় সকল স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা খুলে দেওয়া হয়েছে। যাতে মানুষের পাশাপাশি গবাদী পশু নিয়েও নিরাপদে আশ্রয় নিতে পরেন। বন্যাকবলিত এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে বাড়িবাড়ি পরিদর্শনে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

ডিসি