ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার আর নেই

আগের সংবাদ

রিজেন্টের সাহেদকে চিনতেন না স্বাস্থ্যের ডিজি

পরের সংবাদ

বাতাসে যেভাবে করোনা ছড়ায়

প্রকাশিত: জুলাই ১১, ২০২০ , ৬:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ১১, ২০২০ , ৭:৫৬ অপরাহ্ণ

ঠিক কতগুলো উপায়ে করোনা ছড়াতে পারে এ নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। করোনার উৎপত্তির পর থেকেই এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। করোনা কি বাতাসে ছড়ায়, নাকি ছড়ায় না? এ প্রশ্ন নিয়ে বিতর্ক যেন চলছেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও বিষয়টি নিয়ে সঠিক কোনো সংজ্ঞায় পৌঁছতে পারছে না। সম্প্রতি একটি মার্কিন দৈনিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হো)-র উদ্দেশে খোলা চিঠি লেখেন ২৩৯ জন বিজ্ঞানী। তারা দাবি করেন, ভাইরাসটি ‘এয়ারবোর্ন’ বা বাতাসে ভেসে সংক্রমণ ঘটাতে পারে। হো-র নির্দেশিকা বদল করার দাবিও তোলেন তারা। এর পরেই গতকাল হো নতুন নির্দেশিকা প্রকাশ করে জানায়, বাতাসে ভেসে সংক্রমণ (এয়ারবোর্ন ট্রান্সমিশন) ঘটানোর কিছু রিপোর্ট তাদের হাতে এসেছে। তবে এখনই তারা এটিকে বাতাসবাহিত রোগ বলে ঘোষণা করতে রাজি নয়।

বিষয়টা হচ্ছে হাঁচি, কাশি, কথা বলার সময়ে, শ্বাসপ্রশ্বাসে, এমনকি গান গাইলেও মুখ থেকে বেরিয়ে আসে ছোটছোট জলকণা (ড্রপলেটস)। একেবারে ক্ষুদ্র জলকণাগুলি (এরোসল) কয়েক ঘণ্টা আশপাশের বাতাসে ভেসে থাকতে পারে। বিজ্ঞানীরা দাবি করছেন, কোনো করোনা-আক্রান্ত ব্যক্তির মুখ থেকে বের হওয়া ক্ষুদ্র জলকণাতেও ভাইরাস থাকে। যা বাতাসে ভাসমান অবস্থায় কাছাকাছি থাকা ব্যক্তিকে সংক্রমিত করে। বিষয়টি এত দিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকায় উল্লেখ ছিল না। হাঁচি-কাশিতে বের হওয়া ড্রপলেটস সম্পর্কে সচেতন করেছে -হো, যে কারণে মাস্ক পরতে জোর দেয়া হচ্ছে। কিন্তু ‘এরোসল’ থেকে বিপদের কথা তারা জানায়নি। নতুন নির্দেশিকায় তারা জানিয়েছে, এ ভাবে ‘এরোসল’ মারফত ভাইরাস সংক্রমণের বেশ ক’টি রিপোর্ট তাদের কাছে এসেছে। এগুলো ঘটেছে, বার, রেস্তরাঁ, গানের স্কুল বা জিমের মতো বদ্ধ জায়গায়। তবে আরও বিশদে জানতে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়