রাজধানীর প্রতি ওয়ার্ডে বিনামূল্যে করোনা টেস্টের দাবি

আগের সংবাদ

করোনায় আক্রান্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

পরের সংবাদ

পাটকল শ্রমিকদের গ্রেপ্তারে নিন্দা ও মুক্তি দাবি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ৭, ২০২০ , ১০:২৪ অপরাহ্ণ

খুলনার পাটকল শ্রমিকনেতা অলিয়ার রহমান ও নূর ইসলামকে গ্রেপ্তারে তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ও গণসংগতি আন্দোলন।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) বাসদের কেন্দ্রীয় কার্যপরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুবিনুল হায়দার চৌধুরী এক বিবৃতিতে এ নিন্দা এবং মুক্তির দাবি জানান। অপরদিকে পাটকল শ্রমিক নেতাদের মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানব বন্ধন করেছে গণসংহতি আন্দোলন। সেখানে গণসংগতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি গ্রেপ্তারকৃত শ্রমিকদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান। এটা সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণেরই নগ্ন প্রকাশ বলে মন্তব্য করেন তারা।

বিবৃতিতে তারা বলেন, সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে শ্রমিকরা কর্মচ্যুত হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা তাদের জীবন-জীবিকা রক্ষায় আন্দোলনে নামে। কিন্তু সরকার শ্রমিকদের দাবির প্রতি কর্ণপাত না করে উল্টো ভয়-ভীতি ছড়িয়ে ও গ্রেফতারের মাধ্যমে আন্দোলন দমনের পথ বেছে নিয়েছে। এর আগেও এ পাটকল শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে আন্দোলন-অনশন করেছে, অনশনে মৃত্যুবরণ পর্যন্ত করেছে। এখন সরকারি সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে শ্রমিকদের পথে বসিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত সব পাটকলকেই মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।

নেতারা বলেন, ‘৯০-এর দশক থেকে সরকার উদারীকরণ নীতির আওতায় একের পর এক রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পকারখানা বেসরকারিকরণ করেছে। তার অংশ হিসেবে পাটকলও বেসরকারিকরণ শুরু হয়। কিন্তু অন্যদিকে ব্যক্তি মালিকানায় পাটকল গড়ে উঠতে থাকে। বেসরকারি পাটকলগুলোকে বাজার সুবিধা দিতেই রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলো আধুনিকায়ন করা হয়নি। এখন লোকসানের সব দায় শ্রমিকদের ওপর চাপিয়ে দিতে চাইছে।

নেতারা বলেন, সংকটগ্রস্ত পুঁজিবাদ বেসরকারিকরণের মধ্য দিয়ে নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করছে। এর ফলে শ্রমিক ছাঁটাই, মজুরি কমানো ও মূল্য বাড়ানোসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে জনজীবনে চাপ বাড়ছে, মানুষের নাভিশ্বাস উঠছে। সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ছে শ্রমিকদের ওপর। দিশেহারা শ্রমিকরা যখন বাঁচার তাগিদে রাস্তায় নেমে এসেছে, তখন তাদের ওপর নেমে আসছে নিপীড়ন। ভয়-ভীতি ও গ্রেফতারের মাধ্যমে আন্দোলন দমন করতে চাইছে। এটা সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণেরই নগ্ন প্রকাশ। শ্রমিকসহ জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষায়, পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল ও গ্রেফতার শ্রমিকদের মুক্তির দাবিতে দেশের জনসাধারণকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান তারা।

এমএইচ