অ্যাম্বুলেন্স দান করলেন সাকিব

আগের সংবাদ

ফুটবলারদের সঙ্গে তামাশা করল আরকিউব ফাউন্ডেশন

পরের সংবাদ

বার্সেলোনায় থাকছেন মেসি

খেলা ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ৬, ২০২০ , ১০:২৪ অপরাহ্ণ

ফুটবল বিশ্ব কে কাঁপিয়ে দিয়ে স্প্যানিশ রেডিও সাদেনা খবর প্রকাশ করে বার্সেলোনার প্রাণ ভোমরা লিওনেল মেসি ক্লাবের ওপর নাখোশ হয়ে আগামী ২০২১ সালে বার্সেলোনা ছেড়ে চলে যাবেন। গত বৃহস্পতিবার রেডিওটি জানায়, বার্সার সঙ্গে চুক্তির ব্যাপারে কথাবার্তা বন্ধ করে দিয়েছেন মেসি। এমনকি তারা এও জানায়, মেসি বার্সা ছাড়ার ব্যাপারে অবিচল। তিনি আর বার্সাতে থাকবেনই না। তবে সাদেনার প্রকাশিত এসব খবর উড়িয়ে দিয়েছেন ক্লাবের সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তুমেউ।

আজ ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে বার্সার ৪-১ গোলের জয়ের পর মেসিকে নিয়ে প্রথমবারের মতো কথা বলেন বার্তুমেউ। সংবাদমাধ্যম মুভিস্টারকে তিনি জানান, মেসি আরো দীর্ঘ সময় বার্সাতেই থাকবেন। এমনকি তার সঙ্গে এ ব্যাপারে কথাবার্তা চলছে। তাদের মধ্যে আলোচনা ভেস্তে গেছে এই খবরটি সঠিক নয়।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আলোচনার ব্যাপারে আমি খোলাসা করে কিছু বলব না। কিন্তু মেসি অনেকবার বলেছে সে বার্সাতেই তার ক্যারিয়ার শেষ করতে চায়। বর্তমানে আমরা খেলার ওপর মনোযোগ দিচ্ছি। আর শুধু মেসি নয় আরো অনেকের সঙ্গেই চুক্তি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। মেসি বার্সাতেই তার খেলা চালিয়ে যেতে চায় এবং তার ফুটবল ক্যারিয়ারটাও এখানে শেষ করতে চায়। তার হাতে এখনো অনেক সময় বাকি রয়েছে। আর আমরাও আশা করি আরো অনেক লম্বা সময়ের জন্য তার খেলা উপভোগ করতে পারব।’

বার্সার সঙ্গে মেসির অখুশি হওয়ার অন্যতম কারণ হলেন এই জোসেফ মারিয়া। তিনি মেসিসহ বেশ কয়েকজন তারকা খেলোয়াড়ের নামে দুর্নাম রটানোর জন্য লোক ভাড়া করেছিলেন। আর এ কারণে মেসি তার ওপর অনেকটা ক্ষীপ্ত। তাছাড়া তার মতের বিরুদ্ধে গিয়ে দলের কয়েকজন খেলোয়াড়কে অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়া বা বিক্রি করে দেয়ার জন্যও মেসি নাখোশ। তবে মেসি হলেন বার্সার প্রাণ। আর তাই তার মন ফিরে পাওয়ার জন্য বার্সা যে চেষ্টা করবে তা নিশ্চিত করে বলা যায়। ফলে হয়তো শেষ পর্যন্ত মেসিকে বার্সাতেই থেকে যেতে দেখা যেতে পারে।

এদিকে লিওনেল মেসি বার্সেলোনায় যোগ দেন ২০০৪ সালে। সে সময় মাত্র ১৭ বছর বয়সের এক বালক ছিলেন তিনি। সেই ২০০৪ সাল থেকে খেলে এখন পর্যন্ত বার্সার হয়ে মোট ৩৪টি শিরোপা জয় করেছেন তিনি। আর সবমিলিয়ে তিনি ক্লাবটির হয়ে গোল করেছেন ৬৩০টি। যার মাধ্যমে বার্সার সর্বকালের সেরা গোলদাতার প্রথমস্থানে রয়েছেন তিনি।

এমএইচ