বুড়িগঙ্গায় উদ্ধার অভিযানে লাশের সারি

আগের সংবাদ

করোনা টেস্টের ফি নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন

পরের সংবাদ

সরকারি অনুদান নিয়ে প্রশ্ন উঠলো এবারো!

প্রকাশিত: জুন ২৯, ২০২০ , ২:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ২৯, ২০২০ , ২:১৭ অপরাহ্ণ
চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য সরকারি অনুদান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম। রবিবার ( ২৮ জুন ) সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসানের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ এবং শৈল্পিক চলচ্চিত্র নির্মাণের যে অঙ্গীকার অনুদান নীতিমালায় রয়েছে তার প্রতিফলন ঘটেনি এবারো।
রাকিবুল হাসান বলেন, ‘আমরা হতাশা ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ করছি, অনুদানের জন্য যে চলচ্চিত্র এবং পরিচালকদের নাম এবার প্রকাশ করা হয়েছে, তাদের বেশিরভাগই বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের সাথে সম্পর্কিত। শুধু তা-ই নয়, অনেকেরই চলচ্চিত্র পরিচালনার ন্যূনতম অভিজ্ঞতা আছে বলে আমাদের জানা নেই।’
উক্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো উল্লেখ করা হয়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরেও অনুদান নিয়ে অনেক বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরই তা উপেক্ষা করেছে। বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম মনে করে, চলচ্চিত্র একটি শক্তিশালী গণ ও শিল্পমাধ্যম। যা রাষ্ট্রের স্বপ্ন ও জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিচ্ছবি হয়ে উঠতে পারে। জনগণের অর্থ ব্যয় করে বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের মতো স্থুল ও বিকৃত বিনোদনের প্রসার কোনো অবস্থাতেই সঠিক নয় বলে দাবি করে ফোরামটি।
এবারের অনুদানের তালিকায় পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রামাণ্য চলচ্চিত্রের অনুপস্থিতি বাণিজ্যিক দৃষ্টিভঙ্গিরই নামান্তর এমনটাও উল্লেখ করে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম।
উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তথ্য মন্ত্রণালয় ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ১৬টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও ৯টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য অনুদান ঘোষণা করে। এরমধ্যে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের জন্য মোট ৮ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের জন্য ১ কোটি ৫২ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়