পুলিশ হেফাজতে পিতা-পুত্রের মৃত্যুতে ফুঁসছে ভারত

আগের সংবাদ

গোলের সেঞ্চুরি বায়ার্ন মিউনিখের

পরের সংবাদ

বার্সাকে বাঁচাতে পারলেন না মেসি- সুয়ারেজ

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৮, ২০২০ , ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

করোনার মধ্যে লা লিগার ম্যাচ ফেরার দুই জায়ান্ট বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের মধ্যে শিরোপা নিয়ে চলছে তুমুল লড়াই। সেই লড়াইয়ে শনিবার রাতে বড় রকমের এক ধাক্কা খেল বার্সা। ম্যাচ হারা তো দূরের কথা ড্র করলেই বিপদ এমন ম্যাচে আজ সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে ২-২ গোলের ড্র করেছে বার্সেলোনা। ম্যাচটিতে দুুইবার এগিয়ে গিয়েও হাসি নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি বার্সা। ম্যাচটিতে কাতালানদের হয়ে দুটি গোলই করেন লুইস সুয়ারেজ। আর এই দুটি গোলেই অ্যাসিস্ট করেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। তবে মেসি-সুয়ারেজ দুজন মিলেও ড্র থেকে বাঁচাতে পারেননি দলকে। অন্যদিকে সেল্টা ভিগোর হয়ে গোল করেন ফায়েদোর মলোভ ও লাগো আসপাস।

যদিও এই ড্রয়ের ফলে লা লিগায় ফের শীর্ষস্থানে উঠেছে বার্সেলোনা। কিন্তু তা রিয়ালের চেয়ে মাত্র ১ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে থেকে। ২৯ তারিখ রাত ২টায় এসপায়নলের বিপক্ষে খেলতে নামবে রিয়াল। আর তারা যদি এসপায়নলকে হারায় তাহলে ২ পয়েন্টের ব্যবধানে শীর্ষস্থানটা দখল করতে পারবে। এমনকি এসপায়নলের বিপক্ষে ড্র করলেও শীর্ষস্থান নিজেদের কব্জায় নিতে পারবে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে ম্যাচটিতে বল দখলের দিক দিয়ে বার্সা এগিয়ে ছিল ঢের। কিন্তু বল দখলে এগিয়ে থাকলে কি হবে ডিফেন্ডারদের ব্যর্থতায় ২টি গোল হজম করে বসেছে মেসিরা। ম্যাচের মাত্র ২০ মিনিটের সময় দলকে গোল করে এগিয়ে নেন সুয়ারেজ। এই ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে যায় তারা। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের ৫০ মিনিটে ডিফেন্ডারদের ব্যর্থতায় ১টি গোল হজম করে বসে মেসিরা। গোল হজম করার পর তা পরিশোধ করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে বার্সা। আর এই চেস্টায় ৬৭ মিনিটে তারা সফল হয় সুয়ারেজের দুর্দান্ত গোলে। ভালোই এগিয়ে চলছিল বার্সার লড়াই। কিন্তু ম্যাচের নির্ধারিত সময় শেষ হতে যখন আর মাত্র ৩ মিনিট বাকি তখন ডি বক্সের ঠিক বাইরে ফাউল করে বসেন বার্সার ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে। আর তার এই ফাউলের মাসুল বার্সা দেয় গোল হজম করে। ফাউল থেকে পাওয়া ফ্রি কিকটি নেন সেল্টা ভিগোর অধিনায়ক আসপাস ।

সকলের চোখ ধাঁধিয়ে বলকে বাকিয়ে গোলবারে পাঠিয়ে দেন তিনি। আর এর মাধ্যমে ম্যাচের ৮৮ মিনিটের সময় দলকে সমতা এনে দেন তিনি। তবে বার্সার কপাল ভালো যে ড্র করে ফিরতে পেরেছে। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে প্রায় তৃতীয় গোলটি হজম করতে বসেছিল তারা। কিন্তু গোলরক্ষক স্টেগানের দক্ষতায় এই যাত্রায় বেঁচে যায় বার্সা।

নকি