এবার করোনায় আক্রান্ত সাংসদ এনামুল হক

আগের সংবাদ

এবার টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত

পরের সংবাদ

চেয়ারম্যান অপসারণে একাট্টা ৯ মেম্বার

প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২০ , ৭:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ২৪, ২০২০ , ৮:৫১ অপরাহ্ণ

বরগুনার পাথরঘাটায় চরদুয়ানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অপসারণের দাবিতে ৯ ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে লিখিত অভিযোগ পাঠ করেন প্যানেল চেয়ারম্যান মো. খলিলুর রহমান। বুধবার (২৪ জুন) বেলা ১১টায় পাথরঘাটা প্রেসক্লাবে সংবাদ সন্মেলনে এ অভিযোগ পাঠ করা হয়। ওই সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য কবির মোল্লা, মাহবুবুর রহমান, জাহানারা জানু,শিমু আক্তার,শাহিন জামান, মজিবুর রহমান, আবদুর রহমান হাং, বজলুর রহমান ফারুকসহ ৯ ইউপি সদস্য।

পাথরঘাটার ৩নং চরদুয়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ ফিরোজ ও তার কনিষ্ঠ্য পুত্র বদরুল হুদা বনি’র বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ,চাঁদাবাজি, ক্ষমতার অপব্যবহারসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে সংবাদ সন্মেলন করে অবিলম্বে ফিরোজের অপসারণ দাবি করেছে ওই পরিষদের সদস্যরা।

সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য জাহানারা জানু ও প্যানেল চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, পিতা-পুত্রের লাগামহীন দূর্নীতি এবং ক্ষমতার অপব্যবহারে অতিষ্ঠ আমরা। এলজিএসপি, ননওয়েজ কস্ট,অতি দরিদ্রদের ৪০ দিনের কর্মসূচিসহ বিভিন্ন প্রকল্পের নামে টাকা আত্মসাত ছাড়াও ট্রেড লাইসেন্স, উনিয়ন পরিষদের ট্যাক্স, জেলে ট্রলার লাইসেন্স, নানা হাটের ইজারা, পুকুর জলাশয় ইজারা, হোল্ডিং ট্যাক্সের প্রায় কোটি টাকা আতসাৎ করেন।

ইউপি সদস্য মাহবুব বলেন, চেয়ারম্যানপুত্র বনিকে চাঁদা দিয়ে কাজ করতে হয়। বনি প্রতিনিয়ত হুমকি-ধমকি,দুর্ব্যবহার করে পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে। গত সাড়ে ৪ বছরের কোনো হিসাব দেয়নি চেয়ারম্যান। পরিষদের সচিব ফয়সাল করিমকে নিয়ে সকল দূর্নীতি চালিয়ে যাচ্ছে সে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ ফিরোজ বলেন,সকল অভিযোগ মিথ্যা। এ পর্যন্ত যতবার অডিট হয়েছে; সেখানে তো তারা কোনো ধরনের অনিয়ম পায়নি। তার পরিষদের ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানকে দ্বায়িত্ব দেয়ার ফলে সে ক্ষমতা পেয়ে তার খেয়াল খুশি অনুযায়ী কাজ করেছে। তার সঙ্গে ইউপি সদস্য মাহবুবুর রহমান জোট বেঁধে পরিষদের অন্য সদস্যদের আমার বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তুলেছে।

চেয়ারম্যান পুত্র ও যুবলীগ সদস্য বদরুল হুদা বনি বলেন, খলিল মেম্বার অবৈধ চিংড়ি পোনার ব্যবসা করে। এদের কাজে আমরা বাঁধা দেয়ায় আমাদের বিরুদ্ধে লেগেছে।

বিষয়টি প্রসঙ্গে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির বলেন, চরদুয়ানী ইউপি সদস্যদের পক্ষ থেকে একটি খাম পেয়েছি খুলে দেখা হয়নি। দেখে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়