মোহাম্মদ নাসিমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত

আগের সংবাদ

বাজেট পাসের আগেই বেড়েছে পণ্যের দাম!

পরের সংবাদ

বিপর্যস্ত হালদায় বড়শি দিয়ে মা মাছ শিকার

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২০ , ১০:৩৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ১৪, ২০২০ , ১২:২৬ অপরাহ্ণ

দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র চট্টগ্রামের হালদা নদী এমনিতেই বিভিন্ন কারণে অস্তিত্ব সংকটে। এতে মা মাছের টিকে থাকার ঝুঁকিও দিন দিন বাড়ছে। একদিকে কারেন্ট জাল দিয়ে চলছে নির্বিচারে মা মাছ নিধন অন্যদিকে ইঞ্জিনচালিত নৌকার পোড়া তেলসহ নানা বর্জ্যরে দূষণে হালদা নদী বিপর্যস্ত। এছাড়া ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনে হালদা নদীতে মাছের প্রজননের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। এবার হালদা নদীতে বড়শি দিয়ে মা মাছ শিকার করছে স্থানীয় একটি চক্র।

গতকাল শনিবার দুপুরে বড়শি দিয়ে হালদা নদী থেকে ধরা ১১ কেজি ওজনের একটি কাতল মাছ উদ্ধার করেছে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি মা মাছটি ধরার অপরাধে ছিপাতলী এলাকার মোহাম্মদ ইউনুচ সোহেলকে ১২ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। পরে জব্দকৃত মাছটি হালদা রিসার্চ ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিন বলেন, কয়েক সপ্তাহ ধরে হালদায় তেমন জাল দেখা যাচ্ছিল না। এতে সন্দেহ হচ্ছিল। হঠাৎ খবর পেলাম স্থানীয় একটি চক্র রাতে মাছ ধরে। জাল ব্যবহার না করে তারা এখন ব্যবহার করছে বড়শি। বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কথা বলে জানলাম ডিম ছাড়ার পর মা মাছের খাবারের চাহিদা বেড়ে যায়। আর এ সুযোগটি কাজে লাগিয়ে বড়শি দিয়ে মাছ ধরা সহজ। তাই রাতে মাছ ধরে চক্রটি।

তিনি বলেন, মাছ শিকারের খবর পেয়ে গতকাল সকালে বের হই। সঙ্গে ছিলেন ছিপাতলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল আহসান লাভু। গিয়ে দেখি ছিপাতলী ইউনিয়নের হালদা নদীর মোয়াজ্জেম খান বাড়ি টেক এলাকায় মোহাম্মদ ইউনুচ সোহেল তার সহযোগীদের নিয়ে হালদার পাড়ে বড়শি দিয়ে মাছ ধরছেন। এ সময় সোহেলকে আটক করে ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং মুচলেকা নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের জিম্মায় দেয়া হয়। মা মাছটি হালদা রিসার্চ ল্যাবে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এ সময় অন্য শিকারিরা বড়শি ফেলে পালিয়ে যায়।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়