ফের স্টেনের বাড়িতে হামলা

আগের সংবাদ

আত্মহত্যা করলেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং

পরের সংবাদ

খালে দেয়াল নির্মাণ, দেখার কী কেউ নেই

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২০ , ৪:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১৫, ২০২০ , ৫:২২ অপরাহ্ণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার মাধবপুর ও নোয়াদ্দা মৌজার মাঝ দিয়ে প্রবাহিত যোগী খাল দখল করে চলছে বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণের কাজ। কাজটি করছেন সুজন মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক দেওয়ান তমিজ উদ্দিন (তজু কোম্পানি)। তিনি চান্দহর ইউনিয়নের মাধবপুর গ্রামের মৃত কিনু দেওয়ানের পুত্র।

খাল দখল করে দেয়াল নির্মাণের কারণে মানিকনগর-মাধবপুর কবরস্থান ও মাদরাসার রাস্তার খালের উপর নির্মিত ব্রিজটি অকেজো হয়ে পড়বে। সেই সঙ্গে পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে নোয়াদ্দা মৌজার বিপুল পরিমাণ ফসলি জমি জলাবদ্ধতায় পরিণত হবে বলে আশংকা করছেন স্থানীয়রা।

শনিবার (১৩ জুন) দুপুরে সরেজমিন দেখা গেছে, সিংগাইর-মানিকনগর-সিরাজপুর, মাধবপুর এলাকায় রাস্তা সংলগ্ন খাল দখল করে পুরোদমে চলছে বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণের কাজ। খালের ওপর নির্মিত আরসিসি ব্রিজের পশ্চিম পার্শ্বে জমি কিনে নেন সুজন মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজের কর্ণধার দেওয়ান তমিজ উদ্দিন। ওই জমিতে বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণ করতে গিয়ে পানি প্রবাহের দৃশ্যমান খালটিও দখল করে নিচ্ছেন।

স্থানীয়রা জানান, মানিকনগর কানুখালী ঘাট থেকে প্রবাহমান এ যোগী খালটি দিয়ে চান্দহর কোল হয়ে এলাকার লোকজন বন্দর নগরী নারায়ণগঞ্জ, সদরঘাট ও সাভারসহ নৌপথে বিভিন্ন অঞ্চলে যাতায়াত ও পণ্য পরিবহন করতো। কালের বিবর্তনে নৌপথ বন্ধ হয়ে গেলেও বর্ষা মৌসুমে পানি প্রবাহের জন্য খালটি তার অস্তিত্ব ধরে রেখেছে। খালটি টিকিয়ে রাখতে অর্ধ-কিলোমিটারের মধ্যে নির্মাণ করা হয়েছে তিনটি ব্রিজ।

পার্শ্ববর্তী মানিকনগর গ্রামের শুকুর আলী (৬৮), ইউনুছ আলী (৬৫) ও সিরাজুল ইসলামসহ (৪৮) অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, তজু কোম্পানি টাকার জোরে প্রকাশ্যে খালের মধ্যে বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণ করে খাল ও ব্রিজটি অকেজো করে ফেলছেন। প্রভাবশালী হওয়ায় এলাকার লোকজন কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

খাল দখল করে দেয়াল নির্মাণ। ছবি: প্রতিনিধি

অভিযুক্ত দেওয়ান তমিজ উদ্দিন (তজু কোম্পানি) বলেন, আমি রেকর্ডীয় জমি কিনে বাউন্ডারি দেয়াল নির্মাণ করছি। খাল দখল করে থাকলে আপনি রিপোর্ট করে দেন। ব্রিজ বন্ধ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ওই সময়ে একটি মহল আর্থিকভাবে লাভবানের জন্য ব্রিজটি নির্মাণ করেছিল।

জামির্ত্তা ইউনিয়ন ভূমি সহকারি কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন, জনস্বার্থে রাস্তা সংলগ্ন দৃশ্যমান খাল ব্যক্তি মালিকানা হলেও বন্ধ করার কোনো সুযোগ নেই। অফিস থেকে লোক পাঠিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে পরিমাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মেহের নিগার সুলতানা বলেন, বিষয়টি সরেজমিন দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়