বিএনপি ৯ জুন বাজেট ভাবনা তুলে ধরবে

আগের সংবাদ

যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত ৬ ডিসি থাকছেন নিজ জেলায়

পরের সংবাদ

চাইলেই মেসি-রোনালদোর মতো হতে পারতাম

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ৭, ২০২০ , ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

‘আমি চাইলেই মেসি অথবা রোনালদোর মতো হতে পারতাম। কিন্তু আমার এটা ভালো লাগেনি। হয়তো আমার ডিনারের টেবিলে ওয়াইনের একটি গ্লাসই থাকে, আমি আমার জীবন উপভোগ করেছি।’ এমনটিই বলছিলেন নেদারল্যান্ডসের তারকা ফুটবলার ওয়েসলে স্নাইডার।

ফুটবলের ইতিহাসে তারকার যেন মেলা। তবে আকাশে তারকা লক্ষ থাকলেও ফুটবলের মাঠে যেন তারকা বলতে বুঝায় মেসি কিংবা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো অথবা নেইমারের আধিপত্য। যাদের নামের কারণে ঢাকা পড়ে যায় অন্য সবার নাম। তাই বলে এমন নয় যে, এ সময়ের মধ্যে আর কোন ভালো ফুটবলার খেলেননি।

তেমনই একজন ওয়েসলে স্নাইডার। যিনি সমানভাবে সফল হয়েছেন আন্তর্জাতিক ও ক্লাব ফুটবলে। জাতীয় দলের হয়ে যেমন দাপিয়েছেন, তেমনি সবধরনের সাফল্য পেয়েছেন ক্লাবের হয়েও। স্নাইডারের মতে, তিনি চাইলেন হতে পারতেন মেসি বা রোনালদোর মতো। তবে তার এটি ভালো লাগেনি তাই, অত আত্মত্যাগ বা পরিশ্রম করার কথাও ভাবেনি। যদিও নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট এ ডাচ তারকা। মেসি-রোনালদোর প্রশংসা করে স্নাইডার বলেন, ‘মেসি ও রোনালদো সম্পূর্ণ ভিন্ন। তারা ক্যারিয়ারে অনেক আত্মত্যাগ করেছে। তবে আমার এতে কোন আফসোস নেই। আমি এর সঙ্গেই ঠিক আছি। আমার ক্যারিয়ার অসাধারণই কেটেছে।’

ক্লাব ফুটবলের ইতিহাসে ট্রেবল অর্থাৎ ঘরোয়া ও মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের তিনটি শিরোপা একই মৌসুমে জেতার সাফল্য নেই খুব বেশি ক্লাবের। এর মধ্যে একটি ইতালির ইন্টার মিলান। ইতালির আর কোন ক্লাব পারেনি ট্রেবল জিততে। আর ইন্টারের ট্রেবল জয়ে মূল ভূমিকা রেখেছিলেন ধ্রুপদী ফুটবল খেলা স্নাইডার। মজার বিষয় হলো, বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো সবধরনের সাফল্য পেলেও, কখনও ট্রেবল জিততে পারেনি। লিওনেল মেসির অবশ্য আছে এ সাফল্য।

স্নাইডার নেদারল্যান্ডসের হয়ে পৌঁছে গিয়েছিলেন বিশ্বকাপ জয়ের দ্বারপ্রান্তে। ২০১০ সালের আসরের ফাইনাল ম্যাচে ০-১ গোলের পরাজয়ে হয় স্বপ্নভঙ্গ। তবে সে আসরে পাঁচ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়া ছাড়াও ছিলেন টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। যার সুবাদে সে বছর ব্যালন ডি অর জয়ের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। তবে এ শিরোপা খোয়ান লিওনেল মেসির কাছে। যদিও অনেকের কাছেই, ২০১০ সালে ব্যালন ডি অরের জন্য মেসির চেয়ে বেশি যোগ্য ছিলেন স্নাইডারই।

এমআই