প্রস্তুত হচ্ছে শ্রীলঙ্কা, শিগগিরই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের

আগের সংবাদ

দেখতে দেখতে ৯ বছর

পরের সংবাদ

নাসিমের মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ৫, ২০২০ , ১:১৪ অপরাহ্ণ

করোনা আক্রান্ত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মস্তিষ্কে সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। শুক্রবার ( ৫ জুন)  ভোর সাড়ে ৫টায় তার ব্রেন স্ট্রোক হয়।  নিউরোসার্জন অধ্যাপক রাজিউল হকের তত্ত্বাবধানে তার অস্ত্রোপচার হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন রাজধানীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালের পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান চৌধুরী।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়। তিনি স্বাভাবিকভাবে হাঁটাচলা করেছেন। গতকালই তাকে আইসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তরের কথা ছিল। অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়।

তাঁর মস্তিষ্কের রক্ত ক্ষরণ হওয়ায় অবস্থা ছিলো সংকটাপন্ন। তবে বৃহস্পতিবার (৪ জুন) রাতেই সিএমএইচে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু সেখানে নেওয়ার মতো শারীরিক পরিস্থিতি সেই মুহূর্তে ছিল না।

এর আগে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিউই) স্থানান্তর করা হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য সোমবার (১ জুন) দুপুর ১২টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। চিকিৎসকদের একটি বিশেষ টিম তাঁর ওপর সার্বক্ষণিক নজর রাখছেন।

হাসপাতালটির পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইমরান চৌধুরী জানান, সোমবার দুপুরে তিনি করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে রাত ৮টায়। তখনও তার শারীরিক অবস্থা ভালো ছিল। কিন্তু রাত ১০টার দিকে হঠাৎ করে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। পরিস্থিতি বিবেচনায় তার কিছুক্ষণ পরেই তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে নিয়ে যাওয়া হয়।

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বর্তমানে খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন। তার শারীরিক অবস্থার উন্নতির জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কাছে দোয়া চাওয়া হয়েছে।

নাসিমের ছেলে ও সাবেক সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় তার বাবার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। মোহাম্মদ নাসিমের স্ত্রী লায়লা আরজুমান্দ করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৭ মে থেকে একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত রবিবার (৩১ মে) তিনি বাসায় ফিরেছেন।

আরো পড়ুন…..

এসআর