আমফানে লণ্ডভণ্ড ডুমুরিয়া

আগের সংবাদ

মানুষের অসাধ্য কিছুই নেই

পরের সংবাদ

মানুষের পাশে সাংসদ চুমকি

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২২, ২০২০ , ১২:২৩ অপরাহ্ণ

কখনো অভুক্তদের জন্য খাবার কখনো অথবা অসুস্থ মানুষের জন্য চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করছেন তিনি। রাত-দিন ছুঁটছেন মানুষের দুয়ারে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে হঠাৎ কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্নআয়ের মানুষের পাশে থাকছেন। বাড়িয়ে দিচ্ছেন সহযোগিতার হাত। করোনাকালে গাজীপুর-৫ (কালীগঞ্জ) নির্বাচনী এলাকার মানুষের জন্য এমন সেবা দিয়ে যাচ্ছেন মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি স্থানীয় সাংসদ, বাংলাদেশ আ.লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং ওই মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী।

দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতে স্থানীয় মানুষের সেবায় এখনও তিনি প্রাণবন্ত। করোনায় স্থবির হয়ে পড়া মানুষের জীবনে গতি আনতে তিনি তাঁর নির্বাচনী আসনের প্রতিটি ইউনিয়ন, পৌরসভা, ওয়ার্ড ও গ্রামে গ্রামে অবিরাম ছুটে চলছেন। আর তাঁর এই প্রচেষ্টায় খুশি স্থানীয় সকল শ্রেণি পেশার মানুষও।

উপজেলা প্রশাসন ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মেহের আফরোজ চুমকি এমপি’র ব্যক্তিগত অর্থায়নে এখন পর্যন্ত ৪০ হাজার ৫ শত পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়েছে। স্থানীয় নেতৃবৃন্দের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে কর্মহীন হয়ে পড়া হাজার হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ-তহবিল থেকে সরকারীভাবে স্থানীয় ২২ হাজার কর্মহীন দুঃস্থ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে। দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতেও স্থানীয়ভাবে নিশ্চিত করেছেন চিকিৎসা সেবা। দলমত নির্বিশেষে প্রকৃত অভাবী সবাই এই ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেন।

এছাড়া করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিতেও তিনি সমানভাবে কাজ করে যাচ্ছেন সাবেক সফল এই প্রতিমন্ত্রী। মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিনদের মাধ্যমে মুসল্লিদের সচেতন করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. মাজেদুল ইসলাম সেলিম বলেন, স্থানীয়ভাবে প্রচুর কল-কারখানা গড়ে উঠায় কালিগঞ্জ শ্রমিক অধ্যুষিত এলাকা হিসেবে পরিচিত। এই এলাকায় স্থানীয়দের পাশাপাশি ভাসমান মানুষও রয়েছে। চুমকি আপার পরামর্শে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা করোনার শুরু থেকে আমাদের ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগ পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলবে’।

কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ বলেন, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের ভরসাস্থল মেহের আফরোজ চুমকি এমপি। করোনায় লকডাউন ঘোষণার পর থেকেই তিনি যেভাবে অসহায় মানুষের পাশে আছেন, তা নজিরবিহীন। মেহের আফরোজ চুমকি এপি’র নির্দেশনা ও পরামর্শ নিয়ে আমরা সবাই স্থানীয় কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি’।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি এমপি বলেন, আমার বাবা শহীদ ময়েজউদ্দিন আহমেদ সারা জীবন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নিবেদিত একজন কর্মী ছিলেন। জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর হয়ে কাজ করে গেছেন। বাবা আমাকে শিখিয়েছেন মানুষের বিপদে কিভাবে সাহায্যের হাত বাড়াতে হয়। আজ তিনি বেঁচে নেই। কিন্তু তাঁর আদর্শ বুকে ধারণ করে কাজ করে যাচ্ছি।

এসআর