লকডাউন তুলে নিচ্ছে ইতালিও

আগের সংবাদ

ছয় শর্তে রবিবার থেকে নাটকের শুটিং শুরু

পরের সংবাদ

মায়ের জন্য স্মৃতিকাতর জাহ্নবী

প্রকাশিত: মে ১৬, ২০২০ , ১২:২৩ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১৬, ২০২০ , ১২:২৩ অপরাহ্ণ

দিনটা ছিল শনিবার। ২০১৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি। সেদিন রাতেই দুবাইয়ের সাতমহলা হোটেলের বাথটাবের রক্তাক্ত জলে ভেসে উঠেছিল বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবীর নিথর দেহ। মৃত্যু, স্বেচ্ছামৃত্যু, ষড়যন্ত্র নাকি খুন? তা নিয়ে বিতর্ক আজো অব্যাহত। দেখতে দেখতে তার মৃত্যুর দুই বছর হয়ে গেল। কিন্তু মা নেই, তা আজো বিশ্বাস হয় না জাহ্নবী কাপুরের। কত কিছু বলার ছিল মাকে। কত আবদার-আদর বাকি ছিল তার। শেষ বার কী কথা হয়েছিল মা-মেয়ের? করণ জোহরের শোয়ে সেই স্মৃতিচারণায় চোখ ভিজে যায় জাহ্নবীর। তিনি শেয়ার করেন মায়ের সঙ্গে কাটানো শেষ মুহূর্তের কথা।

২৩ ফেব্রুয়ারি রাতে কিছুতেই ঘুম আসছিল না জাহ্নবীর। মায়ের কাছে আবদার করেন ‘ঘুম পাড়িয়ে দাও’। শ্রীদেবীর হাতে তখন একগাদা কাজ। প্যাকিং বাকি, বাড়ির কাজ। কিন্তু মেয়ের আবদার কি ফেলা যায়? জাহ্নবী শুয়ে পড়লে আস্তে আস্তে মেয়ের মাথার কাছে বসে হাত বোলাতে থাকেন শ্রীদেবী। মেয়ে তখন আধোঘুমে। মায়ের হাতের ছোঁয়ায় ক্রমশ চোখের পাতা ভারি হতে থাকে তার। ‘ঘুম লাগা চোখেই বেশ বুঝতে পারছিলাম মা মাথায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছে’, বলছিলেন জাহ্নবী। পরের দিন ভোর বেলা শুটিং ছিল। তাই ‘মা আসছি’ আর বলা হয়নি তার। মা-ও উড়ে গিয়েছিলেন বাণিজ্যনগরীতে।

এর পরেই এক মস্ত ধাক্কা। খবর আসে শ্রীদেবী আর বেঁচে নেই। গোটা বিশ্বের সময় হঠাৎই থমকে গিয়েছিল। কী করে সম্ভব? কেঁদে উঠেছিল বলিউড। মাকে আজো মিস করেন জাহ্নবী। মিস করেন তার গায়ের গন্ধ। অপেক্ষা করেন, কবে মা আসবে? মায়ের আদর খেতে খেতে তিনি ঘুমিয়ে পড়বেন নিশ্চিন্তে।
মেলা ডেস্ক

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়