আদালত বন্ধে প্রধান বিচারপতিকে ৩০১ আইনজীবীর স্মারকলিপি

আগের সংবাদ

শেরপুরে ধান কাটতে মাঠে নেমেছে পুলিশ

পরের সংবাদ

লকডাউনে কমান্ডারের নেতৃত্বে চলছে গৌরাঙ্গ ভান্ডার

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৬, ২০২০ , ২:১৫ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ২৬, ২০২০ , ২:৪৪ অপরাহ্ণ

লকডাউন উপেক্ষা করে আনসার কমান্ডার মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে চলছে কালীগঞ্জ পৌর বাজারের গৌরাঙ্গ ভান্ডার। আর এই সুযোগে গৌরাঙ্গ ভান্ডার চড়া মূলে জিনিসপত্র বিক্রি করছেন। বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য দোকান পাঠ বন্ধ আছে। এলাকার অনেকই প্রশ্ন তুলেন- গৌরাঙ্গ ভান্ডারের খুঁটির জোর কোথায়?

শনিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেয়া যায়, কালীগঞ্জ বাজারে শুধু গৌরাঙ্গ ভান্ডার বাদে সব দোকান-পাঠ বন্ধ। গোরাঙ্গ ভান্ডারের সব সাটার নামানো থাকলেও একটি সাটার খোলা এবং তার ভেতরে আনসার কমান্ডার মুজিবুর রহমানের পাহাড়ায় বেশ কিছু ক্রেতা নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ক্রয় করছেন। তবে সাংবাদিকদের দেখে ওই আনসার কমান্ডার নিজেকে আড়াল করার চেষ্টা করেন। তবে এ সময় তাকে জিজ্ঞেস করতেই বলে, দোকান বন্ধ করতে এসেছি। আর গৌরাঙ্গ ভান্ডারের মালিককে জিজ্ঞেস করতেই বলে, মানুষজন আসলে আমি কি করবো?

কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন দেশের করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে ইতিমধ্যে লকডাউন ঘোষণা করেন। কিন্তু শুরু থেকেই উপজেলা আনসার কমান্ডার মুজিবুর রহমান কালীগঞ্জ বাজারের কয়েকটি মুদি ও কাঁচা মালের দোকান থেকে সুবিধা নিয়ে তাদেরকে দোকান খোলার সুযোগ করে দেয়। আর এই সুযোগে ওই দোকানীরা জিনিসপত্রের দামও ইচ্ছেমত নিচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে স্থানীয় আরো কয়েক বাসিন্দা সাথে এবং বাজারে কয়েকজন দোকানীর সঙ্গে কথা বললে তারা প্রশাসনের উপর ক্ষোভের কথাই বলল। তারা জানায়, প্রশাসন নির্দিষ্ট কয়েকটি দোকানকে সুবিধা দিচ্ছে। আমাদেরও তো পরিবার আছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন আনসার সদস্য বলেন, আমরা প্রতিদিন একসঙ্গে ডিউটি করছি। আর ডিউটি শেষে প্রতিদিন আমাদের কমান্ডার ২/৩ ব্যাগ ভরে সদাই নিয়ে যায়। এত টাকা পায় কোথায়? প্রতিদিন বাজারের বিভিন্ন দোকানকে খোলার সুবিধা দিয়ে ৫০/১০০ টাকা করে নিচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে যাদের বিষয়টি দেখার কথা তারা কেউই দেখছেন না।

এ ব্যাপারে ওই আনসার কমান্ডার মুজিবুর রহমান বলেন, ঘটনা সত্য নয়। বাজারে দোকান-পাঠ খোলা রাখলে আমি আরো ভয় দেখিয়ে তা বন্ধ করে দিচ্ছি।

ইউএনও মো. শিবলী সাদিক বলেন, বিষয়টি আমি শোনার সঙ্গে সঙ্গেই ওই কমান্ডারকে বাজার এলাকার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। আর অতিরিক্ত মূল্য রাখার বিষয়টি দেখবেন বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়