স্পেনে দেড়মাস পর শিশুদের জন্য লকডাউন শিথিল

আগের সংবাদ

সশস্ত্র বাহিনীকে ত্রাণ বিতরণে দায়িত্ব দেয়ার আহ্বান

পরের সংবাদ

দুষ্ট চক্রের ধান খেয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৯, ২০২০ , ৫:৪৫ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১৯, ২০২০ , ৫:৪৬ অপরাহ্ণ

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী বিশেষ প্রণোদনার টাকা পাবেন না খেলাপিরা। কাদের মধ্যে টাকা বিতরণ করা যাবে তা স্পষ্টভাবে বর্ণনা করা আছে সেখানে। দুষ্ট লোকদের ধান খেয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহী সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) সাধারণ সম্পাদক ও প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাহেল আহমেদ।

রাহেল আহমেদ বলেন, সঙ্কটকালীন সময়ের জন্য ঘোষিত এই প্রণোদনার অর্থ ব্যবহারের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক গত রবিবার যে নীতিমালা প্রণয়ন করেছে, তাতে ঋণখেলাপিদের এ অর্থ না দেয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া যেসব ঋণ খেলাপি বিভিন্ন সময়ে সরকারের দেয়া সুযোগ নিয়ে তিন বারের বেশি তাদের ঋণ পুনঃতফসিল করেছেন, তারাও এই প্রণোদনার অর্থ পাবে না। এ নীতিমালা প্রণয়নে আমাদের অনেক সুবিধা হয়েছে।

ব্যাংকের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে ভিডিও কনফারেন্সে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তিনি। রজতজয়ন্তী উৎসব উদযাপনে ব্যাপক প্রস্তুতি ছিল ব্যাংকটির। কিন্তু করোনাভাইরাসের তাণ্ডবের মুখে স্থগিত হয়ে গেছে সব কর্মসূচি। আর তাই আজ রবিবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে প্রাইম ব্যাংক।

রাহেল আহমেদ জানান, প্রায় গত ২০ দিন ধরে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা স্থবির হয়ে পড়েছে। আর্থিক খাতকে সচল রাখতে বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। একই সঙ্গে ব্যাংকিং খাতে তারল্য বাড়াতে নীতি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। প্রণোদনা প্যাকেজ গুলো ব্যাংকঋণ নির্ভর হলেও অর্থনীতির জন্য ইতিবাচক বলে মনে করেন তিনি।

ইতোমধ্যেই বিজিএমইএ এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাথে কথা বলেছে প্রাইম ব্যাংক। খুব শিগগিরই পোশাক খাতের প্রণোদনা বাস্তবায়নে অগ্রসর হবে ব্যাংকটি।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরো বলেন, এই বছরের মধ্যে আরো দুই থেকে তিনটি নতুন পণ্য উদ্বোধন করতে যাচ্ছে প্রাইম ব্যাংক। এর মধ্যে নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তার জন্য একটি সেবা পণ্য নিয়ে আসা হবে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পণ্যগুলো উদ্বোধন করা হবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যেই সকল দিনে আমানতের সুদ হার ৯ শতাংশে নামিয়ে এনেছে প্রাইম ব্যাংক। পাশাপাশি ডিজিটাল ব্যাংকিং কে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন তারা। এই মুহূর্তে ব্যাংকটিতে যথেষ্ট তারল্য রয়েছে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন রাহেল আহমেদ।

নারী উদ্যোক্তাদের বিষয়ে তিনি বলেন, বেশিরভাগ নারী উদ্যোক্তা মূলধনের অভাবে বা বিভিন্ন সমস্যার কারণে ব্যাংক থেকে ঋণ পেতে সমস্যা হয় । এজন্য প্রাইম ব্যাংক থেকে একটি ব্যতিক্রমী প্রোডাক্ট নিয়ে আসছে শিগগিরই ।

তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি মা-খালাদের কিভাবে ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত করা যায় সেই পরিকল্পনা থেকেই এ ধরনের ব্যাংকিং পণ্য আনার চিন্তাভাবনা করেছি।

প্রাইম ব্যাংকের ডিএমডি হাবিবুর রহমান প্রশ্নোত্তর পর্বে সাংবাদিকদের জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যাংকিং খাতে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা নিরূপণ করার সময় এখনো আসেনি। প্রাদুর্ভাব শেষ হলেই এটা বোঝা যাবে। তবে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করবে প্রাইম ব্যাংক। এই মুহূর্তে ব্যাংকটির ক্রেডিট কার্ডের সুদের হার ২৭ শতাংশ।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়