একনজরে দেশের কোন জেলায় কতজন আক্রান্ত

আগের সংবাদ

টিসিবির পণ্য কিনতে মানুষের উপচেপড়া ভিড়

পরের সংবাদ

বাঁচতে চাইলে ক্ষেতে যাই!

ইমরুল কায়েস রানা

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১৬, ২০২০ , ১১:৪১ অপরাহ্ণ

করোনাভাইরাস যত মানুষকে মারবে, তারচেয়ে বেশি হয়তো আমরা মারা পড়তে পারি খাদ্যাভাবে। কারণ এত লম্বা সময় ধরে যদি আমরা গৃহবন্দী অবস্থায় থাকি, তাহলে বাংলাদেশের খাদ্য উৎপাদনের কী হবে! পকেটে টাকা থাকবে ঠিকই কিন্তু খাবার পাওয়া যাবে না।

খোলা মাঠে সূর্যালোকে নিরাপদ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খুব সহজেই কৃষি কাজ করা যায়। এটি স্বাস্থ্যকরও বটে। কৃষি শ্রমিক না পেলে, পরিবারের সদস্যরা মিলে নিজেদের জমিতে আমরা নিজেরাই চাষাবাদ করতে পারি। বাংলাদেশের সমস্ত ভূমিকে আমাদের ব্যবহার করতে হবে; এক ইঞ্চি জমিও যেন খালি না থাকে। এমনকি টব ও বাড়ির ছাদেও ছোট পরিসরে আমরা চাষাবাদ করতে পারি।

আমাদের মনে রাখতে হবে, পুরো বিশ্বে এই মহামারী ছড়িয়ে পড়েছে। সুতরাং অন্যান্য দেশ হতে খাদ্যশস্য কেনাও সম্ভব হবে না। কেননা প্রতিটি দেশ তার নিজের চাহিদা মেটাতেই হিমশিম খাবে।

আমাদের ডাইনামিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমগ্র ব্যাপারটি অনুধাবন করে কৃষি-কৃষক বাঁচাতে তথা সর্বোপরি জনগণকে ক্ষুধার হাত থেকে রক্ষা করতে কৃষিখাতে ইতোমধ্যে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন।

সরকারিভাবে ব্যাপক খাদ্যশস্য সংগ্রহসহ নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন বাস্তবধর্মী কর্মসূচি। আমরা কৃতজ্ঞ আমাদের দূরদর্শী প্রধানমন্ত্রীর কাছে। আসুন, সবাই ক্ষেতে যাই।

ইমরুল কায়েস রানা
এনএম