২৫ হাজার পিপিই দিল ইয়াংওয়ান করপোরেশন

আগের সংবাদ

এক নজরে সারাদেশ ১৫.০৪.২০

পরের সংবাদ

তৃণমূল নেতাকর্মীদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর তিন নির্দেশনা

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২০ , ৯:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১৬, ২০২০ , ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ

চলমান করোনা সংকট মোকাবিলায় নিজ দল আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের তিন নির্দেশনা দিয়েছেন দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় গণভবন থেকে আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে অবস্থানরত নেতাকর্মীদের সঙ্গে ভিডিও কলে মতবিনিময়ের সময় এ নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় ভিডিও কলে উপস্থিত নেতাকর্মীদের সঙ্গে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন শেখ হাসিনা।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী মতবিনিময় সারাদেশের দলীয় নেতাকর্মীদের করণীয় সম্পর্কে এই নির্দেশনাগুলো দেন তিনি। এসময় ধানমন্ডি কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার রোকেয়া সুলতানা, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান সহ দলীয় কার্যালয় স্টাফরা।

নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী। ছবি: ভোরের কাগজ।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী করোনা সংকট মোকাবিলা ও সরকারের নেওয়া গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে আলোচনা করেন এবং বেশকিছু সাংগঠনিক নির্দেশনাও দেন। আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া সাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এই নির্দেশনার কথা জানানো হয়।

দলীয় নেতাকর্মীদের সাংগঠনিক নির্দেশনা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারাদেশের একেবারে ওয়ার্ড পর্যায়ে পর্যন্ত আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সমন্বয়ে ত্রাণ কমিটি গঠন করতে হবে। সকল সাংগঠনিক উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ অতি দ্রুত ওয়ার্ড পর্যায়ে পর্যন্ত আওয়ামী লীগের ত্রাণ কমিটি প্রস্তুত করে সাংগঠনিক শাখায় জমা দিতে হবে। এই কমিটি দল-মত নির্বিশেষে প্রকৃত দরিদ্র অসহায় ও দুস্থ মানুষের তালিকা করবে। সেই তালিকা স্থানীয় প্রশাসন কে দিয়ে সঠিক তালিকা প্রণয়নে সহায়তা ও সমন্বয় করবে। সেই সঙ্গে কমিটি মানুষের মানবিক সংকটে সার্বিক সহযোগিতা এবং ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিতে কাজ করবে।

ভিডিও কলে যুক্ত নেতাকর্মীরা। ছবি: ভোরের কাগজ।

নির্দেশনায় বলা হয়, বর্তমানে ৫০ লাখ হতদরিদ্র দুঃস্থ অসহায় ও কর্মহীন খেটে খাওয়া মানুষ কে সরকারিভাবে রেশন কার্ডের আওতাভুক্ত করা হয়েছে এবং করোনাভাইরাস এ সৃষ্ট সংকট মোকাবিলায় আরো ৫০ লাখ মানুষকে রেশন কার্ডের অন্তর্ভুক্তির কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গঠিত কমিটি দল-মত নির্বিশেষে সমাজের হতদরিদ্র দুঃস্থ অসহায় ও কর্মহীন খেটে খাওয়া মানুষ যাতে অন্তর্ভুক্ত হয় সে ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করবে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আ বলা হয়, আওয়ামী লীগের এই ত্রাণ কমিটি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে যথাযথ সরকারি নির্দেশনা পালন সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য জনগণকে সচেতন করবে এবং মানবিক সংকট জনগণের পাশে দাঁড়াবে পাশাপাশি স্থানীয় আওয়ামী লীগের নিজস্ব অর্থায়নে পরিচালিত ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখবে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়