করোনা সতর্কতায় শামীমের বার্তা

আগের সংবাদ

করোনা সতর্কতায় সাঈদ বাবুর বার্তা

পরের সংবাদ

করোনা প্রতিরোধে কী বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

প্রকাশিত: এপ্রিল ২, ২০২০ , ৩:২৩ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ২, ২০২০ , ৩:২৬ অপরাহ্ণ

কভিড-১৯ বা করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট রোগ বিশ্বব্যাপী একটি মহামারি রূপ ধারণ করেছে। এই বিষয়ে সচেতনতার জনসচেতনতা গড়ার উদ্দেশ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছে। পরামর্শগুলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটে, গণমাধ্যমে এবং আপনার জাতীয় ও স্থানীয় জনস্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের কাছে পাওয়া যাবে।

সংক্রমিত হওয়া অধিকাংশ মানুষ সুস্থ হয়ে যায়। কিন্তু অনেকের জন্যই এ সংক্রমণ প্রাণঘাতি হয়ে উঠেছে। তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শগুলো আমাদের সবার জানা ও মানার কোনো বিকল্প নেই।

চলুন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শগুলো জেনে নিই-

* বারবার হাত ধোয়া

নিয়মিতভাবে বারবার স্যানিটাইজার দিয়ে অথবা সাবান-পানির মাধ্যমে হাত পরিষ্কার করুন।

* সামাজিক দূরত্ব

জনসমাগম এড়িয়ে চলুন ও দূরত্ব বজায় রাখুন। আপনার, আর হাঁচি-কাশি দেয়া যেকোনো ব্যক্তির মধ্যে ১ মিটার (৩ ফিট) দূরত্ব বজায় রাখুন।

* চোখ, নাক, ও মুখ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন

আপনার হাত নানা জায়গা স্পর্শ করে এবং ভাইরাস তুলে নিতে পারে। একবার সংক্রমিত হয়ে গেলে, আপনার হাত থেকে চোখ, নাক, কিংবা মুখে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। সেখান থেকে, ভাইরাস আপনার দেহে প্রবেশ করতে পারে।

* শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে ভদ্রতা চর্চা করুন

এটা নিশ্চিত করুন যে আপনি এবং আপনার আশেপাশে থাকা লোকজন শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যসম্মত ভদ্রতা চর্চা করেন। মানে, হাঁচি-কাশি দেয়ার সময় কনুই বাঁকিয়ে হাত দিয়ে মুখ আড়াল করা অথবা ফেসিয়াল টিস্যু পেপার ব্যবহার করা। তারপর তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবহৃত টিস্যু ডাস্টবিনে ফেলা।

* জ্বর, সর্দি-কাশি থাকে বা শ্বাস নিতে কষ্ট হলে

শরীর ভালো না বোধ করলে ঘরে থাকুন। তবে জ্বর, সর্দি-কাশি বা করোনার আক্রমণের কোনো লক্ষণ দেখা গেলে অবশ্যই ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন। স্থানীয় স্বাস্থ্য-কর্তৃপক্ষের দিকনির্দেশনা অনুসরণ করুন।

* কভিড-১৯ ছড়াচ্ছে এমন কোনো স্থানে অবস্থান করলে

নিয়মিত স্বাস্থ্যসেবা পরামর্শ মেনে চলুন

কভিড-১৯ এর সাম্প্রতিক খবরাখবরের দিকে খেয়াল রাখুন। নিজেকে এবং অন্যদেরকে কীভাবে কভিড-১৯এর হাত থেকে বাঁচাতে হবে, সে ব্যাপারে আপনার নিয়োগদাতা, জাতীয় ও স্থানীয় স্বাস্থ্য-কর্তৃপক্ষ, এবং যিনি আপনাকে স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন, তার পরামর্শ মেনে চলুন। মাথা ব্যথা এবং নাকে হালকা তরল জমার মতো মৃদু উপসর্গও যদি দেখা দেয়, এবং এর কারণে আপনি যদি অসুস্থ বোধ করেন, ঘরে থাকুন।

* কখন মাস্ক পরবেন?

আপনি যদি সুস্থ হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার মাস্ক পরার প্রয়োজন হবে শুধু একটি ক্ষেত্রেই – যদি আপনি কভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, এমন কাউকে দেখাশোনার দায়িত্বে থাকেন। হাঁচি বা সর্দিকাশি থাকলে। তবে সাবান-পানি বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করার পাশাপাশি মাস্ক পরলেই কেবল মাস্ক পরাটা কাজে আসবে।

করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা দিলে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) হটলাইনের নম্বরগুলোতে যোগাযোগ করা যাবে। হটলাইনের নম্বরগুলো হলো-

০১৯৪৪৩৩৩২২২ ০১৪০১১৮৪৫৫১ ০১৪০১১৮৪৫৫৪ ০১৪০১১৮৪৫৫৫ ০১৪০১১৮৪৫৫৬ ০১৪০১১৮৪৫৫৯ ০১৪০১১৮৪৫৬০ ০১৪০১১৮৪৫৬৩ ০১৪০১১৮৪৫৬৮ ০১৯২৭৭১১৭৮৪ ০১৯২৭৭১১৭৮৫ ০১৯৩৭০০০০১১ ০১৯৩৭১১০০১১ ০১৫৫০০৬৪৯০১ ০১৫৫০০৬৪৯০২ ০১৫৫০০৬৪৯০৩ ০১৫৫০০৬৪৯০৪ ০১৫৫০০৬৪৯০৫

এছাড়া, স্বাস্থ্য অধিদফতরের স্বাস্থ্য বাতায়নের হটলাইন নম্বর- ১৬২৬৩।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়