তারকাবহুল ‘মিউজিক ফর পিস-এফবি লাইভ’

আগের সংবাদ

ঢাকা কেন্দ্রিক হলিউডের ‘এক্সট্র্যাকশন’

পরের সংবাদ

দোকান মালিক সমিতির

২৫০০ কোটি টাকার তহবিল গঠনের দাবি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১, ২০২০ , ৮:৪৩ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারি ঘোষণার কারণে সারা দেশে দোকান ও মার্কেট সেক্টরে ৫৩ লাখ ৭২ হাজার ৭১৬ টি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার ফলে এতে কর্মরত প্রায় ৯৭ লাখ ১৩ হাজার ৯২৯ জন কর্মচারীর আংশিক বেতন পরিশোধের জন্য সরকার তথা প্রধানমন্ত্রীর কাছে অন্তত:পক্ষে আড়াই হাজার কোটি টাকার (ঋণ) তহবিল গঠনের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

বুধবার (১ এপ্রিল) সমিতির পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, মহাসচিব জহিরুল হক ভূইয়াসহ দেশের বিভিন্ন জেলার ২৬ জন মালিক সমিতির প্রতিনিধি স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশের প্রায় ৫৩ লাখ ৭২ হাজার ৭১৬টি পাইকারী ও খুচরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করোইরাস সংক্রমণের কারণে বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে। এই সব প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৯৭ লাখ ১৩ হাজার ৯২৯ জন কর্মচারী কাজ করেন। বর্তমানে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে তাদের বেতন দেয়া মালিকদের পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, কর্মচারীদের বেতন দিতে যে অর্থের দরকার তার আংশিক প্রয়োজন মেটাতে ২ হাজার ৫০০ কোটি টাকা দরকার। এ আড়াই হাজার কোটি টাকা মালিক সমিতিকে বিনা সুদে ঋণ দেবার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। এ ঋণ পাবার ৬ মাস পর থেকে মালিকগণ তা ফেরৎ দিতে বাধ্য থাকবেন। সেই সঙ্গে যেসব দোকান মালিকের ইতিমধ্যে ব্যাংক ঋণ রয়েছে যা বর্তমান উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তারা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হচ্ছেন, তা পরিশোধের জন্য আগামী ৬ সময় বাড়ানোর দাবিও জানানো হয়েছে। মালিক সমিতির পক্ষ থেকে করোনার কারণে ব্যাপক ক্ষতির মুখোমুখি দাড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আর্থিক সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের সময় আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ বায়তুল মোকাররমের ৩৩৩ জন ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে প্রধানমন্ত্রী স্বত:প্রণোদিত হয়ে ৫০ হাজার টাকা করে প্রণোদোনা দিয়েছিলেন। তা দোকান মালিক সমিতি চিরকৃতজ্ঞে স্মরণ করে।

এমএইচ