করোনা তহবিল নিয়ে কী হচ্ছে সার্কে

আগের সংবাদ

গুজব প্রতিরোধে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ

পরের সংবাদ

মুক্তি দিতে ৩০০০ বন্দির তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে

কামরুজ্জামান খান

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১, ২০২০ , ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশের বিভিন্ন কারাগারের ৩ হাজারের অধিক বন্দির মুক্তির জন্য তালিকা করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস নিয়ে যখন মৃত্যু আতঙ্ক তখন ৩ হাজার ৯২ জনকে মুক্তি দেয়ার জন্য এই তালিকা প্রস্তুত করেছে কারা অধিদপ্তর। জামিনযোগ্য, অচল, অক্ষম, বয়োবৃদ্ধ এবং সাজার মেয়াদ প্রায় শেষ পর্যায়ে- এমন বন্দিদের তালিকা করা হয়েছে। অধিদপ্তরের করা ওই তালিকায় বন্দিদের সার্বিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে সুপারিশ করা হয়েছে।

দেশের কারাগারগুলোতে প্রায় ৯০ হাজার বন্দি রয়েছে। যা ধারণক্ষমতার প্রায় দ্বিগুণ। এ অবস্থায় করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে কিছু বন্দি মুক্তি পেলে একটু হলেও স্থান সংকট কাটতে পারে বলে মনে করছেন কারা কর্মকর্তারা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তালিকা বিশ্লেষণ করে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠাবে বলে জানা গেছে। অবশ্য কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, এটা নতুন কিছু না। চলমান রুটিন ওয়ার্ক।

এ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শহিদুজ্জামান গতকাল মঙ্গলবার ভোরের কাগজকে বলেন, কারা অধিদপ্তর থেকে মন্ত্রণালয়ে বন্দি মুক্তির জন্য যে তালিকা পাঠানো হয় তা রুটিন ওয়ার্ক। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরির বন্দি রয়েছে। এবারো যে তালিকা পাঠানো হয়েছে তা গতানুগতিক। করোনা ভাইরাসের কারণে বন্দি মুক্তির বিশেষ কোনো তালিকা করা হয়নি। এর আগে ২১ জনের একটি তালিকা বঙ্গভবনে পাঠানো হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মোস্তফা কামাল পাশা বলেন, কারাবিধি মতে দীর্ঘমেয়াদি বন্দিদের একটি তালিকা তৈরি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ২০ বছর হয়েছে যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত এমন বন্দি, বয়োবৃদ্ধসহ বিভিন্ন শ্রেণির বন্দি রয়েছেন। তিন মাস অন্তর এই তালিকা হালনাগাদ করা হয়। সর্বশেষ ১ হাজার ৪২০ জনের একটি তালিকা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। করোনা ভাইরাসের জন্য বিশেষ কোনো তালিকা করা হয়নি।

অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল আবরার হোসেন জানান, জামিনযোগ্য, অচল, অক্ষম এবং সাজার মেয়াদ শেষ পর্যায়ে এমন বন্দিদের মুক্তির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি তালিকা পাঠানো হয়েছে। তালিকায় তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার বন্দির নাম ও বিবরণ রয়েছে। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী ভীতি কাজ করছে। এ জন্য কারাবিধি মোতাবেক মুক্তি পাওয়ার যোগ্য এমন বন্দিদের ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয়া হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে তার কারা অধিদপ্তর অংশে বলা হয়েছে, সর্বশেষ গত ২৮ মার্চ এর তথ্যমতে কারাগারে কোনো বন্দির করোনা ভাইরাস পজেটিভ নেই। তবে ঠাণ্ডা, কাশি, সর্দি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট থাকায় বাড়তি সতর্কতার অংশ হিসেবে তাদের পৃথক কক্ষে রাখা হয়েছে। বিভিন্ন কারাগারে ৪০ জন বন্দিকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ, মাদারীপুর, সিলেট, ফেনী ও দিনাজপুর কারাগারে আইসোলেশন সেন্টার গঠন করা হয়েছে। বন্দিদের সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ সীমিত করা হয়েছে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করা হয়েছে। বন্দি ও স্টাফদের বিদেশফেরত স্বজনদের কারা এলাকায় প্রবেশ থেকে বিরত করা হয়েছে। কারারক্ষী ও স্টাফদের কারাগারে প্রবেশের সময় হাত ধোয়া ও জুতা পরিষ্কার নিশ্চিত করা হয়েছে।

এসআর