সবার স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করুন

আগের সংবাদ

মুগদা হাসপাতালে ৭০০ পিপিই দিলেন সাবের হোসেন

পরের সংবাদ

অলিম্পিক পেছানোর কারণে জাপানের ক্ষতি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ২৮, ২০২০ , ৮:২৩ অপরাহ্ণ

বিশ্বব্যাপী যখন করোনা ভাইরাসের প্রকোপে একে একে সব স্পোর্টিং ইভেন্টগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল ঠিক তখনই অলিম্পিক নিয়ে আশায় বুক বেঁধেছিল জাপান। তারা প্রত্যাশা করছিল করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে আর সঠিক সময়েই হবে টোকিও অলিম্পিক। কিন্তু সেটি আর হয়নি। ২০২০ সালের অলিম্পিক ১ বছর পিছিয়ে হবে ২০২১ সালে। তবে অলিম্পিক ১ বছর পেছালেও ২০২১ সালের ঠিক কত তারিখে শুরু হবে তা এখনো ঠিক করা হয়নি।
আর এই টোকিও অলিম্পিক ১ বছর পিছিয়ে যাওয়ায় বেশ বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েছে জাপানের অলিম্পিক আয়োজক কমিটি। তাদের এই ক্ষতির পরিমাণটা ঠেকেছে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলারে। কারণ অলিম্পিক পেছানোয় তাদের আরো ১ বছর খরচ করে যেতে হবে। জাপানের সংবাদ সংস্থাগুলো জানিয়েছে এই ১ বছরে তাদের আরো বাড়তি খরচ হবে ৫.৭ বিলিয়ন ডলার। কারণ আয়োজক কমিটিকে নতুন করে ভেন্যুগুলো লিজ নেয়ার কথাবার্তা বলতে হবে। তারপর ভেন্যুগুলো রক্ষণাবেক্ষণের আগামী এক বছরের জন্য তাদের প্রচুর পরিমাণে খরচ করতে হবে। যেটি তারা গত কয়েক বছর ধরে করে আসছে। অলিম্পিক এক বছর পিছিয়ে যাওয়ায় যেই সমস্যাটি সবচেয়ে প্রকট হয়ে উঠেছে সেটি হলো অলিম্পিক ভিলেজ। অলিম্পিকে প্রায় ১১ হাজার অ্যাথলেট অংশ নেয়ার কথা। আর অলিম্পিক চলাকালে তাদের থাকার জন্য অলিম্পিক ভিলেজে তৈরি করা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার অ্যাপার্টমেন্ট। এই অ্যাপার্টমেন্টগুলো ইতোমধ্যেই বিক্রি করা শুরু করে দিয়েছে রিয়েল অ্যাস্টেট প্রতিষ্ঠানগুলো। এগুলো অলিম্পিক শেষেই ক্রেতাদের কাছে হস্তান্তর করে দেয়ার কথা। কিন্তু এখন যেহেতু আসর ১ বছর পিছিয়ে গেছে তাই অলিম্পিক ভিলেজও ক্রেতাদের বুঝিয়ে দেয়া সম্ভব নয়। তাই অলিম্পিক আয়োজক কমিটিকে প্রচুর টাকা জরিমানা দিতে হবে। আর এই জরিমানার পরিমাণটাও নেহাত কম হবে না।
এত গেল অবকাঠামোগত ক্ষতির ব্যাপারটি। এবার আসা যাক স্পন্সর ও টিভি স্বত্বর দিকে। টোকিও অলিম্পিক এখন পর্যন্ত স্থানীয় কোম্পানিগুলোর কাছে স্পন্সরশিপ বিক্রি করেছে ৩.৩ বিলিয়ন ডলার, যা যে কোনো অলিম্পিকের চেয়ে সবচেয়ে বেশি স্পন্সরশিপ বিক্রির রেকর্ড। এমনকি দ্বিগুণও। কিন্তু যারা স্পন্সরশিপের পেছনে টাকা ঢেলেছে তারা আয়োজক কমিটিকে জিজ্ঞেস করবে তারা যে টাকা বিনিয়োগ করছে তার বদলে তারা কী পেল।
টোকিও অলিম্পিক সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রায় ৩ হাজার ৫০০ লোক নিয়োগ করেছিল আয়োজক কমিটি। এখন অলিম্পিক পেছানোয় আয়োজক কমিটি তাদের ক্ষতির পরিমাণ কমাতে চাইবে। আর তাই আশঙ্কা করা হচ্ছে যে অনেককে ছাটাই করবে তারা।

ডিসি