বাঙালির গৌরবগাঁথার দিন আজ

আগের সংবাদ

করোনা কাড়লো ফুল, বাড়ালো আকুতি

পরের সংবাদ

করোনা সংক্রমণে গ্রেটা ও তার বাবা

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ২৬, ২০২০ , ১:০৩ পূর্বাহ্ণ

পরিবেশকর্মী গ্রেটা থানবার্গ আশঙ্কা করছে, তার করোনভাইরাস সংক্রমিত হতে পারে এবং তার বাবা ও সে স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে গেছেন। কিশোরী এই জলবায়ু কর্মী বলছে, তার বাবা অভিনেতা সাভেন্তে থানবার্গসহ সে সংক্রমিত হয়েছে।

গ্রেটা বলেছে, ইউরোপের একটি রেলভ্রমণের পর তাদের মধ্যে করোনার লক্ষণ দেয়া দেয়। তারপর থেকে দুই সপ্তাহ ধরে তারা নিজেদের আইসোলেশনে রেখেছেন। এরকম পরিস্থিতিতে ভ্রমণ বিষয়ে থ্রেটা বলে, করোনা তেমন বিস্তার লাভ করেনি তখন। ইউরোপসহ অনেক দেশও লকডাউনে যায়নি।

ইন্সটাগ্রামের একটি পোস্টে থ্রেটা লিখেছে, বাবাসহ আমি ব্রাসেলস থেকে আসার পর শরীর কাঁপুনি, সর্দি-কাঁশি ও গলা খুশখুশ লেগেই আছে। ১৭ বছর বয়সী সুইডিশ এই কিশোরী একটি ভিডিও বার্তায় বলেছে, সে মোটামুটি এখন সুস্থ। কিন্তু তার বাবার মধ্যে সংক্রমণের বেশি লক্ষণ দেখা দিয়েছে।

গ্রেটা বলে, আমি এখন ঝুঁকির মধ্যে নেই। বিষয়টি সিরিয়াসলি নেইওনি। আর এটাই সবচেয়ে বিপজ্জনক যে, আপনি জানেন না এই ভাইরাসটি আপনার মধ্যে আছে। আমি যদি বাবার সঙ্গে সংক্রমিত না হতাম এবং আমার চেয়ে বাবা যদি বেশি সংক্রমিত না হতো তাহলে আমি জানতামই না যে আমি অসুস্থ ছিলাম। অনেকেই লক্ষণগুলো অনুভব করে না, করলেও গুরুত্ব দেয় না। তবে এটি অন্যদের সংক্রমিত হতে পারে। তাই সকলকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

এসময় সে তরুণদের এ দুর্যোগ মোকাবেলায় এগিয়ে আসার আহবান জানায়। একইসঙ্গে চিকিৎসার প্রয়োজন না হলে হাসপাতালে যেতে নিরুৎসাহিত করেছে।

গত ডিসেম্বর থেকে সারাবিশ্বে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। এর পরপরই প্রায় দুশ দেশে প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষ এতে আক্রান্ত হন। মারা গেছেন প্রায় ২০ হাজার মানুষ। চলতি বছরে এই মহামারি সম্পর্কে সচেতন করতে ফ্রাইডেস ফর ফিউচারের জলবায়ু কর্মীরা সাপ্তাহিক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ মুহূর্তে স্কুল বন্ধ থাকায় থানবার্গ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে সুরক্ষিতভাবে অন্যদের পাশে দাঁড়ানোর কাজ করছে।

এনএম