ফল প্রত্যাখ্যান করে ফের ভোট চাইলেন রবি

আগের সংবাদ

১% ভোট পড়লেও নির্বাচন বৈধ হবে: ইসি সচিব

পরের সংবাদ

বিদ্যুতের সংযোগ চাওয়ায় শ্লীলতাহানী

গৃহবধু’র মামলায় পল্লীবিদ্যুতের দালাল গ্রেপ্তার

তৈয়বুর রহমান, কুড়িগ্রাম

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ২১, ২০২০ , ৭:২৬ অপরাহ্ণ

কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুরে পল্লী বিদ্যুতের দালালের হাতে মারধর ও শ্লীলতাহানীর শিকার এক গৃহবধুর অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ভুপতি চন্দ্রকে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) উলিপুর থানায় মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত ভুপতিকে আটক করার কথা জানান এস.আই রাসেল।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভার নারিকেল বাড়ি গাছেরতল এলাকার তরনী কান্তের পুত্র কালু দীর্ঘদিন ধরে ঐ এলাকায় পল্লী বিদ্যুৎ এর দালালি করে আসছিল। এক ঠিকারদার প্রতিষ্ঠান ঐ গ্রামে বিদ্যুতের লাইন সম্প্রসারণের কাজ শুরু করে। এ সুযোগে কালু ঐ গ্রামের শুকুর উদ্দিনের পুত্র সাইফুল ইসলামসহ শতাধিক লোকের কাছ থেকে দ্রুত বিদ্যুতের সংযোগ দেয়ার কথা বলে জনপ্রতি ৪ থেকে ৫ হাজার করে টাকা হাতিয়ে নেয়। শুধু তাই নয়, কোন কোন পরিবারের কাছে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা নেয়ারও অভিযোগ রয়েছে।

এরই মধ্যে কালু কয়েকজনকে মিটার সংযোগ দিয়েছে। তবে সাইফুল ইসলামের কাছ থেকে ৪ হাজার টাকা নেয়। সংযোগ না পাওয়ায় সে বারবার কালুর কাছে সংযোগ চাচ্ছিল। সে সময় কালু তার কাছে আরো অতিরিক্ত ৫০০ টাকা দাবি করে। দাবীকৃত টাকার মধ্যে ৩০০ টাকা সাইফুল তাকে দিলেও সে সন্তুষ্ট হতে পারেনি।

সাইফুল অতিরিক্ত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তার টাকা ফেরত চাইলে কালু সাইফুল ইসলামের শার্টের কলার ধরে কিল ঘুষি মারতে থাকে। এ সময় স্থানীয় লোকজন সাইফুল ইসলামকে উদ্ধার করে। মারধরের খবর পেয়ে সাইফুল ইসলামের স্ত্রী মর্জিনা বেগম, পুত্র মশিউর রহমান, শ্বাশুড়ী গোলেনুর বেগম ঘটনাস্থলে যায়। সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে কালুসহ তার পরিবারের লোকজন তাদের উপর আক্রমণ চালায়। এ সময় তারা মর্জিনা বেগম ও গোলেনুর বেগমকে বেধড়ক মারধর করে বিবস্ত্র করে ফেলে। তাদের আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় মর্জিনাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

স্পর্শকাতর এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে গত ৪ মার্চ ভুক্তভোগী পরিবারটি থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় গত বৃহস্পতিার (১৯ মার্চ) উলিপুর থানায় মামলা রেকর্ড করেন। ঐ দিনই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ভুপতি চন্দ্র কে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই রাসেল বলেন, অন্য আসামিদেরও দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে।

এসআর