মুজিবদর্শনের সারাৎসার

আগের সংবাদ

বাবুল চিশতির হাজার কোটি টাকার সম্পদ

পরের সংবাদ

ভারতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার প্রভাব

বেনাপোলে উপচে পড়া ভিড়, আখাউড়ায় বন্ধ পারাপার

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ১৩, ২০২০ , ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সব ধরনের পর্যটক ভিসা স্থগিত করেছে ভারত সরকার। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে এটি কার্যকরের কথা থাকলেও গতকাল বৃহস্পতিবার থেকেই আখাউড়া স্থলবন্দরে বাংলাদেশি যাত্রী পারাপার বন্ধ করে দিয়েছে ভারতের ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। এদিকে ভিসা স্থগিত এবং ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারির পর সাধারণ মানুষের মধ্যে উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। চিকিৎসা, ব্যবসাসহ প্রয়োজনীয় সব কাজ করতে উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে।

ভারতীয় হাইকমিশনের একটি কূটনৈতিক সূত্র বলছে, ইতোমধ্যে যারা ভারতে অবস্থান করছেন তাদের সে দেশে ভ্রমণে বা নিজ দেশে ফিরে আসতে কোনো প্রকার নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গত বুধবার জানিয়েছে কূটনৈতিক, জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক সংস্থা, চাকরি এবং প্রজেক্ট ভিসা বাদে বিদ্যমান সব ধরনের ভিসা স্থগিত থাকবে। এই সময়ের মধ্যে যদি কোনো বিদেশি নাগরিককে ‘বাধ্যতামূলকভাবে’ ভারতে যেতে হয়, তাহলে তাকে নিকটস্থ ভারতীয় মিশনে যোগাযোগ করতে বলেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, ভারতে এখন পর্যন্ত ৬৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই ইতালির পর্যটক। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ১ কোটি ৩৭ লাখ ৩০ হাজার ২৮২ বিদেশি ভারত ভ্রমণ করেছেন। এর মধ্যে প্রথম অবস্থানে থাকা বাংলাদেশির সংখ্যা ছিল ২৮ লাখ ৭৬ হাজার। কেবল ২০১৯ সালে বাংলাদেশিদের জন্য ১৫ লাখ ভিসা দিয়েছে প্রতিবেশী দেশটি। ভারত ভ্রমণের নয়া নির্দেশনায় সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন বাংলাদেশিরাই।

বেনাপোল স্থলবন্দরের অভিবাসন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আহসান হাবিব বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে ভারত অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশি যাত্রীদের সে দেশে ঢুকতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ বিকাল ৫টা থেকে আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে যেতে পারবেন না। তবে বাংলাদেশে অবস্থানরত ভারতীয়রা ভারতে যেতে পারবেন। এছাড়া ভারত ভ্রমণে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও বাংলাদেশে ঢোকার ক্ষেত্রে কোনো ভারতীয়র বাধা নেই। এছাড়া যারা ভারতে গেছেন কিংবা যারা বাংলাদেশে রয়েছেন তারা ফিরে যেতে পারবেন।

ভারতের ভিসা বাতিলের খবরে বেনাপোলে যাত্রীদের ভিড় : ভারতের ভিসা বাতিলের খবরে সবচেয়ে বড় স্থলবন্দর বেনাপোলে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। তবে ভারতের অংশে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার যন্ত্রাংশ অচল থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন অনেকেই।
চিকিৎসার জন্য ভারতগামী যাত্রী তৌফিক জানান, ভারত অংশে স্বাস্থ্য পরীক্ষার নামে হয়রানির কারণে ৩ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও ইমিগ্রেশনে ঢুকতে পারেননি। চেকপোস্ট কাস্টমস সুপার কামরুজ্জামান জানান, ভারতের অংশে ইমিগ্রেশনে স্বাস্থ্য পরীক্ষার যন্ত্র অচল থাকায় মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। তবে যাত্রীরা যাতে দ্রুত যেতে পারে তার জন্য তিনি তাদের অনুরোধ জানিয়েছেন। ১৩ মার্চ থেকে যাত্রীদের ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হলেও বেনাপোল বন্দরে আমদানি, রপ্তানি বাণিজ্য স্বাভাবিক আছে বলে জানান তিনি।

আখাউড়া দিয়ে যাত্রী পারাপার বন্ধ : আমাদের আখাউড়া প্রতিনিধি জুটন বনিক জানিয়েছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে যাত্রী পারাপার বন্ধ করে দিয়েছে ভারতের আগরতলা ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট কর্তৃপক্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে কোনো যাত্রীকে ঢুকতে দিচ্ছে না ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। অথচ আজ শুক্রবার থেকে যাত্রী পারাপার বন্ধের কথা বলে নোটিস টাঙানো হয়েছে।
আখাউড়া আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের ইনচার্জ এসআই আবদুল হামিদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ভারতীয় নাগরিক যারা বাংলাদেশ আছেন, তাদের যেতে দেবে কিনা সে বিষয়ে সেখানকার কর্তৃপক্ষ স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি।

ইমিগ্রেশন পুলিশ জানায়, সকাল থেকে মেডিকেল যাত্রীদের ঢুকতে দিলেও পর্যটক ভিসার যাত্রীদের ভারত ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করে বিএসএফ ও আগরতলা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ। তবে যাদের আগরতলা বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইট ছিল তাদের আখাউড়া ইমিগ্রেশন পুলিশের অনুরোধে ঢুকতে দেয়া হয়। এরপর দুপুর থেকে আর কোনো যাত্রীকে ভারতে ঢুকতে দেয়া হয়নি। পর্যটন ভিসার পাশাপাশি মেডিকেল ভিসার যাত্রীদেরও ভারতে ঢোকা বন্ধ করে দেয়া হয়। দুপুরের পর থেকে অন্তত ১০ জান যাত্রীকে ফেরত পাঠিয়েছে আগরতলা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

চেকপোস্টের ইমিগ্রেশন ইনচার্জ উপপরিদর্শক আবদুল হামিদ জানান, ভারতীয় ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা শুক্রবার থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকেই তারা সেটি কার্যকর করেছে। যাদের খুব বেশি জরুরি প্রয়োজন ছিল আমি অনুরোধ করার পর তাদের ঢুকতে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, আখাউড়া আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে প্রতিদিন দুই দেশের প্রায় এক হাজার পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত করেন। তবে গত কয়েক দিন ধরে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এই সংখ্যা নিচের দিকে নেমে আসতে শুরু করে।

ডিসি