চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত আছি : রবি

আগের সংবাদ

বিচারক বদলির ঘটনায় সিপিবির নিন্দা

পরের সংবাদ

দেশে ফেরার মানসিকতা নেই

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ৫, ২০২০ , ৬:২৮ অপরাহ্ণ

অ্যাডভোকেট কাওসার আহমেদের মাধ্যমে অনিক মাহমুদকে তালাক নোটিশ পাঠিয়ে দিয়ে দীর্ঘ সাত বছরের সংসারের জীবনের ইতি টানলেন শাবনূর। বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার পরই ডিভোর্স নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। শাবনূর জানান, আমার ছেলে আইজান পৃথিবীতে আসার পরপরই বদলে যেতে থাকে অনিক। স্বামী হিসেবে তার দায়িত্বহীনতা ও সংসারের প্রতি উদাসীনতা আমাকে হতাশ করতে লাগলো। তার মধ্যে নানা পরিবর্তন লক্ষ করলাম। তাই এ ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত।

এর আগেও মিডিয়ায় তার সংসার ভাঙার খবর প্রচার হয়েছিল, কিন্তু তা অস্বীকার করেছিলেন শাবনূর। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, হ্যাঁ অস্বীকার করেছিলাম কা’রণ আমি কয়েকবার তাকে তালাক দিতে চাইলেও বাচ্চার কথা চিন্তা করে এবং আমার পরিবারের অনুরোধে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছিলাম।

শাবনূর বলেন, আমি মনে করি এমন সংসার থাকার চেয়ে না থাকাই ভালো। যে বাবা ছেলের জন্মের পর থেকে সে আমার কাছ থেকে দূরে সরে থাকছে এবং অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে আলাদা বসবাস করছে। তার সঙ্গে থাকা সম্ভব না।

এদিকে আর দেশে ফিরবেন না বলে জানিয়েছেন শাবনূর। দেশের একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, দেশে ফেরার মতো মানসিকতা আমার আর নেই। কারণ একদিকে সুখে-শান্তিতে সংসার করতে পারলাম না। অন্যদিকে সম্প্রতি সালমানের অপমৃত্যুর সঙ্গে অনাকাঙ্খিত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে আমাকে জড়ানো হয়েছে। তাই দেশে ফিরে আর কি করব। আমার ছেলে আইজানকে এখানে একটি স্কুলে ভর্তি করিয়েছি। তা ছাড়া এ দেশে বেশ কিছু ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত আছি। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি দেশে আর ফিরব না। এখন এখানে সন্তানকে নিয়ে একটু শান্তিতে থাকতে চাই। সবাই আমার ও আমার সন্তানের জন্য দোয়া করবেন।

এসএইচ