মাটিরাঙায় বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষে নিহত ৪

আগের সংবাদ

একনেকে ৮ প্রকল্প অনুমোদন

পরের সংবাদ

ভারত থেকে অনেককে বাংলাদেশে পাঠানোর পায়তারা চলছে

প্রকাশিত: মার্চ ৩, ২০২০ , ১:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ৩, ২০২০ , ২:৪৩ অপরাহ্ণ

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এনআরসি তৈরি করে ভারত থেকে অনেককে বাংলাদেশে পাঠানোর পায়তারা চলছে।নতজানু পুতুল সরকার ক্ষমতায় থাকায় এ বিষয়ে কিছুই বলছেনা ক্ষমতাসীনরা। জনগণের অধিকার, স্বাধীনতা বিক্রি করে দিচ্ছে সরকার। স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।

মঙ্গলবার (৩ মার্চ) পানি ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের যে আজকে আমাদের দেশে বিচার বিভাগ, উচ্চ আদালত তারা সঠিক বিচার করতে পারে না। কারণ, একটা একনায়কতন্ত্র দেশ চলছে। ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র চলছে। আজকে এই সরকার ব্যাংকিং সেক্টর কে ধ্বংস করে দিয়েছে। দেশের অর্থনীতি, শিক্ষা ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য খাত ধ্বংস করেছে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বলতে কিছু নাই।

রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ ফখরুল বলেন, আজকে দুই বছর হয়ে গেল সরকারের সমস্যা সমাধান করতে পারেনি। আজকে অনেকে বলে, সরকার ইচ্ছা করে এটাকে জিয়ে রেখেছে। কারণ, এতে তাদের লাভ হয়। পশ্চিমা বিশ্ব থেকে সমর্থন পাওয়া যায়। আর যে সাহায্য-সহযোগিতা আসে তার থেকে ভাগ- বাটোয়ারা পাওয়া যায়।

পানি ও বিদ্যুতের দাম না কমালে জনগণের যে উত্তাল তরঙ্গ তৈরি হবে তাতে এ সরকার ভেসে যাবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন,বর্তমান সরকারের আমলে পানির দাম পাঁচবার বাড়লো। কিন্তু সে পানি মুখে দেওয়া যায় না, খাওয়া যায় না। বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৮ বার। কারণ পাওয়ার প্লান্টের নামে তারা যে লুট করেছে তার ভর্তুকি দেয়ার জন্য।

তিনি বলেন, আজকে মানুষের পকেট কেটে তারা বিদ্যুতের দাম বাড়াচ্ছে। যদি কোন পাওয়ার প্ল্যান্ট বিদ্যুৎ সরবরাহ না করে তবুও তাদেরকে ভর্তুকি দিতে হবে এই হচ্ছে তাদের চুক্তি। গতকাল জানলাম, প্রতি বছর ৫১ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। এই টাকা জনগণের বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট থেকে নেওয়া হচ্ছে।

বেগম খালেদা জিয়া খুব অসুস্থ হলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সঠিক রিপোর্ট দিতে পারেনি উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন,সরকারের নির্দেশেই তারা সেটি করেছে।

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব বলেছেন, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি তারিখে খালেদা জিয়ার যে ব্লাড পরীক্ষা হয়েছে সেখানে তার ফাস্টিং সুগার হচ্ছে ১৪.৫। চিন্তা করা যায় না। ১৪.৫ যদি তার নিয়মিত সুগার হয় তাহলে সেটা তার হার্ডে এফেক্ট করতে পারে, কিডনিতে এফেক্ট করতে পারে বা লাঞ্চে এফেক্ট করতে পারে।

মির্জা ফখরুল বলেন, এতকিছুর পরেও দুর্ভাগ্য আমাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় সাবেক পিজি হাসপাতালের ডাক্তার যাদের এদেশের মানুষ শ্রদ্ধা করে। তাদের উপর নির্ভর করে তারা আজকে সত্যি রিপোর্ট দিতে পারলেন না। এবং সেটা তাদেরকে এ সরকার বাধ্য করেছে সঠিক রিপোর্ট না দেয়ার জন্য।

আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। বিদেশে হাজার কোটি টাকা পাচার করা হয়েছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব আরো বলেন,কুইক রেন্টালের নামে জনগনের টাকা লুটপাট করা হয়েছে। সে লুটপাটের সমন্বয় করতে এখন আবার জনগনের পকেট কাটতে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয় সব কিছুর দাম বাড়ছে। জনগনের প্রতি দায়বদ্ধতা নেই বলেই সব কিছুর দাম বাড়ানো হচ্ছে। অত্যাচারের স্টিমরোলার মেনে নেবেনা জনগণ। গণতান্ত্রিক সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে এক দলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এসময় পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাসের বাড়তি দাম প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, বেগম সেলিমা রহমান, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুল, নির্বাহী কমিটির সদস্য ও নিপুন রায় চৌধুরী, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, কৃষক দলের সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিনসহ বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়