শেষ নেতৃত্বে মাশরাফি, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দল ঘোষণা

আগের সংবাদ

একদিন যদি বন্ধ থাকে!

পরের সংবাদ

বিটিআরসিকে ১০০০ কোটি টাকা দিল গ্রামীণফোন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০ , ৫:৫৩ অপরাহ্ণ

আদালতের নির্দেশে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নিরীক্ষা আপত্তির বকেয়ার মধ্যে এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করেছে গ্রামীণফোন। রবিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার পর রমনায় বিটিআরসির কার্যালয়ে চেয়ারম্যানের কাছে গ্রামীণফোনের পরিচালক ও হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাতসহ কর্মকর্তারা এ সংক্রান্ত পে-অর্ডার হস্তান্তর করেন।

গত শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিটিআরসিকে হাজার কোটি টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায় গ্রামীণফোন। এর আগে বিটিআরসির নিরীক্ষা দাবির পাওনা এক হাজার কোটি টাকা আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে দিতে গ্রামীণ ফোনকে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। গত বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) এ নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন সাত বিচারপতির আপিল বেঞ্চ।

এক হাজার কোটি টাকার পে-অর্ডার গ্রহণের পর বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, অনেক দিন ধরে মিস আন্ডারস্ট্যান্ডিং হয়েছিল। আজ সংবিধান রক্ষা হলো, সুপ্রিম কোর্টের আদেশ রক্ষা হলো। এ সরকার তার প্রাপ্য অর্থের কিছু হলেও পেলো, যা জনগণের টাকা।

টাকা দেয়ার জন্য গ্রামীণফোনকে ধন্যবাদ জানিয়ে চেয়ারম্যান বলেন, দেরি হলেও ব্যাপারটি বুঝতে পেরেছে, টাকাটা দেয়াই যখন লাগবে, দিয়ে দিয়েছে তারা।

নিরীক্ষা আপত্তির টাকা বকেয়া থাকায় অপারেটরটির এনওসি বন্ধ রেখেছিল বিটিআরসি। এনওসি প্রত্যাহারের বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে বিটিআরসি প্রধান বলেন, আদালত যে নির্দেশ দেবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইনের বাইরে আমরা যাবো না।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের পরিচালক ও হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাত বলেন, দেশের আইনি ব্যবস্থার প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল। আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী ১০০০ কোটি টাকা জমা দিলাম। তিনি আরো বলেন, আমার বলে আসছি অডিটের বিষয়ে আমাদের একটু আপত্তি আছে, সেই পজিশনটা স্টিল অব্যাহত রাখছি।

পে-অর্ডার হস্তান্তর অনিষ্ঠানে বিটিআরসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এসআর