রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাপস পালের শেষকৃত্য সম্পন্ন

আগের সংবাদ

বাঁশের সাঁকোই ভরসা ১৫ গ্রামের মানুষের

পরের সংবাদ

লন্ডন মেয়রকে কাছে পেয়ে আপ্লুত ইরতাবাসী

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ , ৬:৩০ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ , ৬:৩১ অপরাহ্ণ

নাড়ির টানে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে লন্ডনের রামসগেট শহরের মেয়র রওশন আরা দোলন ফিরে এলেন শৈশবের স্মৃতি বিজরিত পৈতৃক ভিটা সিংগাইরের ইরতা গ্রামের খান বাড়িতে।

দোলনকে কাছে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়লেন খান বাড়িসহ গোটা এলাকার মানুষ। আপন করে বরণ করে নেয়া হয়। সত্তরোর্ধ বিধবা রুবিয়াসহ অনেকে দোলনকে পেয়ে বুকে জড়িয়ে ধরেন। কেউ কেউ আবেগাপ্লুত হয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন।

প্রশাসনের নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝেও রওশন আরা যেন এই প্রত্যন্ত পল্লীরই চিরচেনা এক নারী। সিংগাইর উপজেলা চেয়ারম্যান মুশফিকুর রহমান খান হান্নান ও ওসি আব্দুস সাত্তার মিয়াসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ তাকে বরণ করে নেন।

এর আগে বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে নামার পর হেলিকপ্টারে করে সকাল সাড়ে ১০টায় তালেবপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অবতরণ করেন রওশন আরা দোলন। বিদ্যালয় ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে কৃতি ছাত্রী ও সফল এ নারীকে উষ্ণ সংবর্ধনা দেয়া হয়।

শুভেচ্ছা গ্রহণ করছেন রওশন আরা। ছবি: প্রতিনিধি

স্বাধীনতার পর ১৯৭৭ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমিয়েছিলেন রওশন আরা। তবে বিদেশে থাকলেও নাড়ির টান এখনও অটুটু রয়ে গেছে। বাংলা ভাষার প্রতি রয়েছে তার গভীর মমত্ববোধ। তাই এবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে দেশের মাটিতে পা রেখেছেন লন্ডন মেয়র দোলন।

আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি নিজ উপজেলার ভাষা শহীদ রফিকের জন্মভিটায় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাবেন। পাশাপাশি ওইদিন বিকেলেই নিজ বাড়িতে প্রয়াত বাবা প্রকৌশলী রজ্জব আলী খানের স্মরণে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে অংশ নিবেন।

দুপুরে মধ্যাহ্ন ভোজ শেষে বাংলাদেশের রাজনীতি ও তার দেশে আগমন নিয়ে কথা হয় ভোরের কাগজের সঙ্গে। রাজনীতি প্রসঙ্গে রওশন আরা বলেন, রামসগেট শহরের মানুষ আমাকে ভালোবেসে ভোট দিয়ে মেয়র নির্বাচিত করেছেন। আমি বাঙালি নারী হয়ে লন্ডনে জনপ্রতিনিধিত্ব করছি। আপনাদের ভালোবাসা পেলে বাংলাদেশের রাজনীতিতেও সক্রিয় হওয়ার ইচ্ছে আছে আমার। তবে সেটা হবে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ দলের।

লন্ডন মেয়র দোলন আরো জানান, তার বাবা বহু আগে থেকেই এলাকায় মসজিদ, মাদরাসা, কবরস্থান নির্মাণ ও দুস্থদের মধ্যে আর্থিক সহযোগিতাসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে অবদান রেখেছেন। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখাসহ অটিজম নিয়ে আমৃত্যু কাজ করার ইচ্ছেও প্রকাশ করেন তিনি।

ভোরের কাগজ প্রতিনিধির সঙ্গে রওশন আরা। ছবি: প্রতিনিধি

১৯৮৫ সালে লন্ডনে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার রেজাউর রহমানের সঙ্গে। সেখানে হোটেল ব্যবসার পাশাপাশি তিনি লেবারপার্টির সক্রিয় রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ২০১৯ সালের ১৪ মে রামসগেট শহরের মেয়র নির্বাচিত হন রওশন আরা। তাদের ঘরে রয়েছে দু’পুত্র সন্তান। বড় ছেলে রাইভি রহমান অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যারিস্টার এট ‘ল’ সম্পন্ন করে প্রাইভেট ফার্মে চাকরি করছেন। ছোট ছেলে জুনাইদ রহমান অটিজম আক্রান্ত। এর আগে বাংলাদেশ থেকে রিকশা নিয়ে লন্ডন শহরে আলোচিত হয়েছিলেন রওশন আরা।

এনএম

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়