আদিতমারীতে ট্রাকের ধাক্কায় কলেজ ছাত্র নিহত

আগের সংবাদ

প্রস্তুতি ম্যাচের দল ঘোষণা করেছে বিসিবি

পরের সংবাদ

রাণীনগরে রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ , ৬:০১ অপরাহ্ণ

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার শের-এ বাংলা সরকারি কলেজ (রেল স্টেশন) হইতে উত্তর রাজাপুর গ্রামের কুদ্দুসের দোকন পর্যন্ত রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নিম্মমানের ইটের খোয়া ও খোয়ার সাথে রাবিশ মিশানো এবং রাস্তায় বালুর পরিমান বেশি এবং ইটের খোয়ার পরিমান কম দিয়েই কাজে নয় ছয় করে রাস্তার কাজ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা ।

জানা গেছে, রাণীনগর উপজেলার শের-এ বাংলা সরকারি কলেজ (রেল স্টেশন) হইতে উত্তর রাজাপুর গ্রামের কুদ্দুসের দোকন পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার ৬৫ মিটার রাস্তা (কারপেটিং) পাকাকরণ কাজের জন্য গত বছরের জুলাই মাসে জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী (এলজিইডি) অফিস থেকে টেন্ডার দেওয়া হয়। সেই টেন্ডারে আদমদিঘীর সান্তাহারের মো: সোহেল নামে এক ঠিকাদার এই রাস্তার কাজটি পায়। এই কাজের বরাদ্দ দেওয়া হয় প্রায় ৬৯ লাখ টাকা। এরপর এই শুস্ক মৌসুমে রাস্তার কাজ শুরু করেন ঠিকাদার।

অভিযোগ উঠেছে অফিসের তদারকির অভাবে এই রাস্তার কাজে প্রথম থেকেই ঠিকাদার অনিয়ম করে কাজ করছে। নিম্মমানের ইটের খোয়া ও খোয়ার সাথে রাবিশ মিশানো এবং রাস্তায় বালুর পরিমান বেশি এবং ইটের খোয়ার পরিমান কম দিয়েই কাজে নয় ছয় করে এই রাস্তার কাজ করা হচ্ছে। এই ভাবে অনিয়ম করে রাস্তার কাজ করা হলে ভারী যানবাহন চলাচলে রাস্তাটি টিকশই করবে না বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তাই এই রাস্তার কাজ সঠিক (ভালো) ভাবে করার জন্য উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় মো: আজিজুল ইসলাম, মোয়াজ্জেম হোসেনসহ আরো অনেকেই বলেন, নিম্মমানের ইটের খোয়া এবং খোওয়ার মধ্যে রাবিশ। আবার রাস্তায় বালুর পরিমান বেশি ও খোয়ার পরিমান কম দিয়ে রাস্তার কাজ করা হচ্ছে। আমরা এখন এই রাস্তার জন্য ব্যাপক দুর্ভোগে আছি। দ্রুত রাস্তার কাজটি করা হলে এই দুর্ভোগ থেকে আমরা রক্ষা পাবো। এই রাস্তার কাজ সঠিক (ভালো) ভাবে করার জন্য উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের এই রাস্তার দিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে ঠিকাদার মো: সোহেল এর সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন, রাস্তার কাজে কোন অনিয়ম হচ্ছে না বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে রাণীনগর উপজেলা প্রকোশলী (এলজিইডি) শাইদুর রহমান মিঞা বলেন, সরেজমিনে গিয়ে রাস্তাটি দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।