দক্ষিণখানে নারীসহ দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার

আগের সংবাদ

এবারের ভ্যালেন্টাইনে ‘ভিলেন’ করোনা

পরের সংবাদ

চীনে করোনার নতুন সংকট, আক্রান্ত ১৭০০ স্বাস্থ্যকর্মী

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০ , ৯:০৩ অপরাহ্ণ

চীনে করোনাভাইরাসের নতুন সংকট দেখা দিয়েছে। আক্রান্ত রোগীদের সেবায় নিয়োজিত স্বাস্থ্যকর্মীরা এবার আক্রান্ত হতে শুরু করেছে। আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের তালিকা দীর্ঘ হতে শুরু করেছে। আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের চীন সরকার কোনো তালিকা প্রকাশ না করলেও বেসরকারিভাবে তথ্য জানা যাচ্ছে।

তবে প্রথমবারের মতো সরকারিভাবে আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের সংখ্যা জানালো শি জিনপিং এর চীন। দেশটির ন্যাশনাল হেলথ কমিশন শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) এক বিবৃতিতে জানায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা ১৭১৬। এর মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ছয়জন। এ পরিসংখ্যানে স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ব্যাপক উদ্বেগ।

সংস্থাটির ডেপুটি ডিরেক্টর জেং ইক্সিন সংবাদকর্মীদের বলেন, আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে ১১০২ জনই হুবেই প্রদেশের। মোট আক্রান্তের ৩.৮ শতাংশ স্বাস্থ্যকর্মী। মৃত্যুর হার ০.৪ শতাংশ। তবে তাদের সংক্রমণ হাসপাতাল থেকে নাকি সাধারণভাবে হয়েছে, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, শুধুমাত্র শুক্রবারেই (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভয়াবহ এ ভাইরাসে ঝরেছে ১২১ প্রাণ। মৃতদের ১১৬ জনই হুবেই প্রদেশের, যেখান থেকে উৎপত্তি হয়েছিল এ ভাইরাস। সবমিলিয়ে চীনে মৃত সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩৮০ জনে। নতুন করে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ৪৮২৩ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ হাজার ৯৮৬।

করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দেয়া কর্মীরা। ছবি: ইন্টারনেট।

এ বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক বিবৃতিতে বলা হয়, এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি ভাইরাসের প্রকোপ। চীনসহ বিশ্বজুড়ে বাড়ছে ব্যাপক উদ্বেগ। চরম আতঙ্ক তৈরি হয়েছে চীনের স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে। হুবেই প্রদেশে ভাইরাসের থাবা সবচেয়ে বেশি। এখানে দিন-রাত ২৪ ঘন্টাই কাজ করে যাচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকরা। সঙ্কট দেখা দিয়েছে মুখোশ, গ্লাভস, পোশাক ও নিরাপদ চশমার।

স্বাস্থ্যকর্মীরা জানান, হাসপাতালে বার বার পোশাক, গ্লাভস, মুখোশ খুলে খাওয়া দাওয়ার সময় সংক্রমণ হতে পারে। এ আতঙ্কে তারা দিনে একবেলা খাচ্ছেন।

স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে সংক্রমণের আতঙ্কের বিষয়ে হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের এপিডেমিওলজির অধ্যাপক বেঞ্জামিন কাউলিং বলেন, বিষয়টা অত্যন্ত উদ্বেগের। উহানে এক একজন স্বাস্থ্যকর্মীকে অনেক রোগীর দেখভাল করতে হচ্ছে। সেই চিকিৎসা করতে গিয়ে আক্রান্ত হলে সেটা খুবই ভয়ঙ্কর।

এনএম