উন্নয়ন বনাম জাতিগত উন্নয়ন

আগের সংবাদ

কিশোর অপরাধে সামাজিক আন্দোলন

পরের সংবাদ

বীরদের বরণ, উষ্ণ সংবর্ধনা

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০ , ৬:৩১ অপরাহ্ণ

তর সইছিল না কারোই। কখন ফিরবেন বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা তারই অপেক্ষা ছিল। বিমানবন্দরের বাইরে তখন ক্রিকেটভক্তদের উপচে পড়া ভিড়। কারো হাতে ফুল, কেউ বা হাতে নিয়েছেন জাতীয় পতাকা। অধীর অপেক্ষা কয়েক ঘণ্টা ধরে। তবে শেষ অবধি অপেক্ষার অবসান হলো।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পাঁচটার দিকে বিমানবন্দরের রানওয়ে ছুঁয়ে দিল ক্ষুদে টাইগারদের বহনকারী বিমান। চারদিকে তখন জয়ধ্বনি। উল্লাসের ফেটে পড়লো ভক্তরা।

চারবারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের সোনালি ট্রফি হাতে বীরের বেশে নেমে এলেন ক্ষুদে টাইগারের দল। সঙ্গে কোচিং স্টাফরা। হাতে ট্রফি, আর মুখে বিশ্বজয়ের হাসি। এবার বরণ করে নেয়ার পালা।

ভিআইপি লাউঞ্জে ফুল হাতে দাঁড়িয়ে বরণকারীরা। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল আর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান যুব ক্রিকেট দলকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিলেন। এসময় ছিলেন বিসিবির পরিচালকেরা। যুবাদের মিষ্টিমুখও করানো হলো।

সংবর্ধনা জানাতে বিমানবন্দরে বিসিবি সভাপতি। ছবি: ভোরের কাগজ।

এরপর বিমানবন্দর থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় চ্যাম্পিয়নদের মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে নিয়ে যাওয়ার পালা। বিশ্বজয়ীদের বহন করতে ঘণ্টা খানেক আগেই বিমানবন্দর এলাকায় প্রস্তুত রাখা হয়েছিল ‘চ্যাম্পিয়ন বাস’। ‘চ্যাম্পিয়ন’ স্টিকার দিয়ে মুড়ে দেয়া বাসটিতে শোভা পাচ্ছিল চ্যাম্পিয়নদের ছবি।

সেই বাসে করেই সোজা যুব ক্রিকেট দলকে নিয়ে যাওয়া হয় মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। যেখানে আগে থেকেই সংবর্ধনা মঞ্চ প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। সন্ধ্যার পর তাদের বরণ করার পালা। বিশ্বকাপ জিতে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন যুবারা। এবার বরণের গোটা আয়োজনই লেখা হলো সোনার হরফে।

ক্ষুদে টাইগারদের বরণে বিমানবন্দরে অপেক্ষা। ছবি: ভোরের কাগজ।
অগণিত ভক্ত, ক্রিকেট প্রেমীরা ভিড় করেছেন বিমানবন্দরে।

 

এনএম