রাঙ্গাবালী প্রেস ক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন

আগের সংবাদ

থামছে না মৃত্যুর মিছিল, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮১৩

পরের সংবাদ

সকালটা শিশুদের বিকেলটা বড়দের

শরীফা বুলবুল

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০ , ১০:২৩ অপরাহ্ণ

অমর একুশে গ্রন্থমেলার শিশু প্রহরের শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ছিল দ্বিতীয় দিন। এদিন সকাল এগারোটা থেকে শিশু-কিশোরদের ভিড় জমে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রবেশ গেটে। কেউবা বাবা-মায়ের হাত ধরে, কেউবা বন্ধুদের সঙ্গে আবার কেউবা দল বেধে স্কুল ড্রেসে শিক্ষকদের সঙ্গে এসেছে মেলায়। সেখানে অদম্য শিশুদের দুরন্ত উপস্থিতিতে মুখর হয়ে ওঠে পুরো প্রাঙ্গন। বিভিন্ন বয়সী শিশুরা স্টল ঘুরে ঘুরে বইয়ের পাতা উল্টে নিজেদের পছন্দের বই খুঁজছে। স্টলের পাশে থাকা কয়েকটি খেলাধুলার স্পটেও তাদের মধ্যে বেশ উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গেছে।

এ ছাড়া শিশুপ্রহরে শিশু-কিশোরদের বাড়তি আনন্দ দিচ্ছে সিসিমপুর স্টল। যেখানে শিশুদের জন্য আকর্ষণীয় সব মজার মজার বই সাজানো রয়েছে। একইসাথে শিশু চত্তরে সিসিমপুরের প্রিয় চরিত্রগুলোর সাথেও লাফিয়ে ঝাপিয়ে সময় পার করে আনন্দিত শিশুরা। মেলা ঘুরে দেখা গেছে, মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ছোটদের মজার মজার সব বইয়ের স্টল এবং বিনোদন কেন্দ্র নিয়ে সাজানো হয়েছে শিশু চত্বর। যেখানে প্রবেশ করলেই মনে হবে এ যেন কোনো শিশুরাজ্য। যেখানে ছড়ানো রয়েছে শিশু-কিশোরদের সায়েন্স ফিকশন, ভূতের গল্প, কৌতুক এবং ছড়াসহ নানা ধরণের সব বই।

আমরা আর ওরা সবাই কিনি বই।

মেলায় দেখা মিলল আজিমপুর শিশু বিকাশ কেন্দ্রের একঝাঁক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে তাদেরকে মেলায় নিয়ে আসা হয়েছে। জানতে চাইলে শিক্ষার্থী উর্মি জানায়, গত বছরের মতো এবারও বইমেলায় বই কিনতে এসেছে। বিজ্ঞান এবং ছোটদের গল্পের বই পড়তে তার ভীষণ পছন্দ। তার কার্টুন দেখতে ভালোলাগে। তাই সে কয়েকটি কার্টুনের বই কিনেছে।শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার প্রাথমিক নির্বাচন। এ ছাড়া সকালের পর দুপুর গড়িয়ে সন্ধ্যা নামল যখন, তখন বড়দের সমাবেশ ঘটে। গুচ্ছ গুচ্ছ আড্ডায় মেতে ওঠে অনেকে।

শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার প্রাথমিক নির্বাচন
অমর একুশে উদ্যাপনের অংশ হিসেবে শনিবার সকালে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে শিশু-কিশোর আবৃত্তি প্রতিযোগিতার প্রাথমিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় ক-শাখায় ১৩০ জন এবং খ-শাখায় ৭০ জন শিশু-কিশোর অংশগ্রহণ করেন। বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রেজীনা ওয়ালী লীনা, ফয়জুল আলম পাপ্পু এবং ফয়জুল্লাহ সাঈদ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম। শিশু-কিশোর সংগীত প্রতিযোগিতার প্রাথমিক নির্বাচন  অমর একুশে উদ্যাপনের অংশ হিসেবে সকালে গ্রন্থমেলার আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে শিশু-কিশোর সংগীত প্রতিযোগিতার প্রাথমিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় ক-শাখায় ৭৯ জন এবং খ-শাখায় ৮৮ জন শিশু-কিশোর অংশগ্রহণ করেন। বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ. এস. এম. মহিউজ্জামান চৌধুরী (ময়না), ইয়াকুব আলী খান এবং চন্দনা মজুমদার।

মূলমঞ্চের আয়োজন

বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় এম আবদুল আলীম রচিত ‘বঙ্গবন্ধু ও ভাষা-আন্দোলন’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায়। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন প্রতিভা মুৎসুদ্দি। লেখকের বক্তব্য প্রদান করেন এম আবদুল আলীম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম।

বেশ ভালো বই। এখন কিনতেই হবে।

আলোচকরা বলেন, বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার আন্দোলনে নিবিড়ভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৫২ সালে চীনের শান্তি সম্মেলন এবং ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘে বাংলাভাষায় বক্তৃতা প্রদান মাতৃভাষার প্রতি তার অদম্য ভালোবাসারই বহিঃপ্রকাশ। বাংলা আমাদের রাষ্ট্রভাষা হলেও আজও আমরা সর্বস্তরে বাংলাভাষার প্রচলন করতে পারিনি। মুজিব জন্মশতবর্ষে আমাদের অঙ্গীকার থাকবে বাংলাভাষাকে বিশ্বের দরবারে মর্যাদার উঁচু আসনে অধিষ্ঠিত করা ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলা।

এদিন কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি অঞ্জন সাহা, আতাহার খান, টোকন ঠাকুর এবং রাসেল আশেকী। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ইকবাল খোরশেদ, মাসুদুজ্জামান এবং মীর মাসরুর জামান রনি। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয় গোলাম কুদ্দুছের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘বহ্নিশিখা’। সংগীত পরিবেশন করেন আবুবকর সিদ্দিক, অণিমা মুক্তি গোমেজ, বিমান চন্দ্র বিশ্বাস এবং মো. মুরাদ হোসেন। শনিবার লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন শামীম রেজা, দীপু মাহমুদ, শিহাব শাহরিয়ার এবং সাদিয়া মাহজাবীন।

বই নেড়ে দেখায় মনোযোগ।

নতুন বই
বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের দেয়া তথ্য থেকে জানা যায়, শনিবার বইমেলায় মোট বই প্রকাশ হয়েছে ২০১টি। এর মধ্যে নতুন উল্লেযোগ্য বইয়ের মধ্যে বাংলা একাডেমি এনেছে সৈয়দ শামসুল হকের লেখা ও ফকরুল আলম অনূদিত বঙ্গবন্ধুর শিশুতোষ জীবনী গ্রন্থ ‘ব্যালাড অব আওয়ার হিরো বঙ্গবন্ধু’, শোভা প্রকাশ এনেছে জুলফিকার নিউটনের প্রবন্ধ ‘বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্রচিন্তা ও রাজনীতি’, আগামী প্রকাশনী এনেছে বঙ্গবন্ধু বিষয়ক বেলাল চৌধুরীর ‘বত্রিশ নম্বর’, অনিন্দ্য থেকে এসেছে মোশতাক আহমেদের সায়েন্স ফিকশন ‘রিরি’, পুথিনিলয় এনেছে ‘বুক পকেটে রবীন্দ্রনাথ (২৫ খণ্ড), চন্দ্রাবতী একাডেমি এনেছে মারুফুল ইসলামের ‘মানুষ মানুষ আয়না’, বাংলা প্রকাশ এনেছে হাবীবুল্লাহ সিরাজীর ‘প্রকৃতি ও প্রেমের কবিতা’, শিশু গ্রন্থকুটির এনেছে জাহীদ রেজা নূরের ‘স্পেনের রূপকথা’, কথাপ্রকাশ এনেছে সুমন্ত আসলামের ‘প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিন চা খেতে আসেন আমাদের বাসায়’, অনন্যা এনেছে শামসুর রাহমানের ‘শামসুর রাহমানের গল্প’, জ্ঞানকোষ প্রকাশনী এনেছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘আমার সাইন্টিস মামা’।

এসএইচ