শিশু প্রহরে শিশুদের ঢল

আগের সংবাদ

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার বিপক্ষে ডাকসু

পরের সংবাদ

দ্বিতীয় দিনেই পাকিস্তানের ১০৯ রানের লিড

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০ , ৮:০৮ অপরাহ্ণ

পাকিস্তানকে ডাক উপহার দিয়ে ইনিংস শুরু করতে পারলেও শান মাসুদ আর বাবরের সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড় গড়ার পথ রুদ্ধ করতে পারেনি টাইগার বাহেনী। রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে বাংলাদেশের করা ২৩৩ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিনেই লিড ১০৯ রানের লিড দিয়েছে পাকিস্তান। বাবর আজম আর আসাদ শফিক যেভাবে খেলে যাচ্ছেন এভাবে কাল দুপুর পর্যন্ত খেললে ইনিংস ব্যাবধানে হারতে হবে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বিশ্লেষকরা।

শনিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে দ্বিতীয় দিন শুরু করে অবশ্য দুর্দান্ত কিছু করার আভাস দিয়েছিল বাংলাদেশ। পাকিস্তানের ইনিংসের শুরুতেই আবিদ আলীকে ডাক উপহার দেন আবু জায়েদ। দলীয় ২ রানের মাথায় লিটন দাসের গ্লাভসে বন্দী হয়ে সাজঘরে ফেরেন আবিদ।

১৬ বছর পর পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। কিন্তু রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে এখন পযর্ন্ত উল্লেখযোগ্য কিছুই করতে পারেনি টাইগাররা। প্রথমদিন ব্যাটিং ব্যর্থতার পর দ্বিতীয় দিনে বোলিংয়েও নিজেদের সেরাটা দেখাতে পারেনি সফরকারী দল। ব্যাটসম্যানদের ভরাডুবিতে প্রথম ইনিংসে মাত্র ২৩৩ রানে অলআউট হয় মুমিনুল হকরা।

এরপর অবশ্য টাইগার বোলারদের হতাশই করেছেন ওপেনার শান মাসুদ ও অধিনায়ক আজহার আলী। দুজনে গড়েন ৯১ রানের জুটি। তবে দুঃসময়ে আরেকবার টাইগারদের মুখে হাসি ফোটান আবু জায়েদ। তার বলে ব্যক্তিগত ৩৪ রানে নাজমুল হাসান শান্ত’র হাতে ধরা পড়েন আজহার।

কিন্তু সেই হাসি বেশিক্ষণ টিকেনি বাংলাদেশের। বাবর আজমকে নিয়ে বড় জুটি গড়েন শান। দলীয় ২০৫ রানে তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণিতে বোল্ড হওয়ার আগে টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় ও টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি উদযাপন করেন ৩০ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান। তার ১৬০ বলে ১০০ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১১ চারে।

শানের বিদায়ের কিছুক্ষণ পর সেঞ্চুরি তুলে নেন বাবরও। ১৮৭ বলে ১৯ চার ও ১ ছক্কায় ১৪৩ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন তিনি। এটি তার টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি এবং এখন পযর্ন্ত সর্বোচ্চ ইনিংস। বাংলাদেশের নির্বিষ বোলিংয়ের সামনে দাঁড়িয়ে বাবরকে সঙ্গ দেওয়া আসাদ শফিকও তুলে নেন ফিফটি। ৬০ রানে অপরাজিত থেকে তৃতীয় দিন শুরু করবেন তিনি।

এসএইচ