ভোটার তালিকা হালনাগাদে দ্বিগুণ সময় বাড়িয়ে বিল পাস

আগের সংবাদ

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্কুল হকি প্রতিযোগিতা শুরু

পরের সংবাদ

ভোটার তালিকা নিয়ে সংসদে বিএনপির প্রশ্ন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ২৬, ২০২০ , ৬:৫৬ অপরাহ্ণ

ভোটার তালিকা হালনাগাদ আইন পাসের আগে বিলের ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে বিএনপির সংসদ সদস্যরা ভোটার তালিকার অদৌ কোন প্রয়োজন আছে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। রবিবার (২৬ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে ভোটার তালিকা (সংশোধন) বিল ২০২০ পাশের আগে এর বিরোধীতা করে দেয়া বক্তব্যে তারা এমন মন্তব্য করেন।

বিএনপির সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদের প্রয়োজন হয় যখন মানুষ ভোট দিতে পারে। যে দেশে দিনের ভোট রাতে হয়, ভোটে পুলিশ প্রশাসন ক্যাডার বাহিনী, যে দেশের মৃত মানুষরা কবর থেকে উঠে এসে ভোট দেয়। যে দেশে দলীয় ক্যাডাররা খুশির ঠেলায় ভোট দিতে ভোটাররা লাইনে দাঁড়ায়, সেই দেশে ভোটার তালিকা থাকা বা না থাকাতে কী আসে যায়? ক্ষমতাসীন আস্থাভাজন ছাড়া যেহেতু প্রায় কেউই ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে পারে না। সেহেতু ভোটার তালিকায় তাদের নাম নির্ভুলভাবে আসলেই চলে। তিনি বলেন, জনগণের করের টাকা বাঁচাতে মানুষ যাতে ভোটাধিকার প্রয়োগ থেকে অলীক স্বপ্নে আশাহত না হয় এ প্রেক্ষাপটে হালনাগাদ দূরে থাকুক, তালিকা আদৌ প্রয়োজন আছে কি না- সেবিষয়ে জনমত যাচাই করা হোক।

বিএনপির এমপি হারুনুর রশীদ তার বক্তব্যে বলেন, ভোটার তালিকার প্রয়োজনটা কী? আমার ভোট আমি দেব, যাকে খুশি তাকে দেব, এর জন্যই তো ভোটার তালিকা প্রণয়ন করা হয়। হালনাগাদ করে আমাদের কী হবে? যদি নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দিতে না পারে, ভোটাররা যদি ভোট দিতে যেতে না পারে তাহলে ভোটার তালিকা করে কী হবে? জনমত যাচাই-বাছাই করার প্রয়োজন আছে?

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন যে আইন করছে বিধিবিধান করছে, এগুলো কি মানছি? সরকারি দলের সদস্যরা যেভাবে চাচ্ছেন সেভাবেই নির্বাচন করা হবে, সেভাবেই নির্বাচনী কার্যক্রম চলবে, সেভাবে নির্বাচনী উৎসব চলবে। ঢাকা সিটি করপোরেশনে রীতিমত যুদ্ধ হচ্ছে। প্রার্থীদের মধ্যে যুদ্ধ হচ্ছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নীরব, প্রশাসন নীরব, কেউ কোনো কাজ করছে না। আইন প্রণয়ন বাদ দেন, দেশ যেভাবে ফ্রি স্টাইলে চলছে এভাবে একদলীয়ভাবে দেশ চালান। কোনো আইন প্রণয়নের প্রয়োজন নেই।

এসএইচ