এবার খবরদারি করলেন সেই অধ্যক্ষের স্ত্রী!

আগের সংবাদ

আলো ছড়ানো বঙ্গবন্ধু বিপিএল

পরের সংবাদ

মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়!

নিগার সুলতানা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ২২, ২০২০ , ৯:৪৭ অপরাহ্ণ

একটা শিশু জন্মের পর থেকে তার পরিবার থেকে নৈতিক মূল্যবোধ অর্জন করে থাকে। যে পরিবারের সদস্যদের নৈতিকতা ও মূল্যবোধ সম্পর্কে কোনো শিক্ষা দেয়া হয় না সে পরিবারে দুঃখ কষ্টের কোনো সীমা নেই। ফলে সে পরিবারের কেউ নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধ অর্জন করতে পারে না। যখন কারো মাঝে মনুষ্যত্ব থাকে না তখন তার মাঝে পশুত্ব এসে ভর করে। এভাবেই একটি পরিবারে অমানুষের জন্ম হয়। যার দরুন এভাবে শুধু যে একটি পরিবারেরই ক্ষতি হয় বিষয়টি তা নয়। সাপে কামড়ালে যেমন বিষ পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে ঠিক তেমনি সমাজে একজন খারাপ মানুষ থাকলে তার দ্বারা পুরো সমাজ প্রভাবিত হয়। তখন সামাজিক জীবন সাপের বিষের মতো বিষাক্ত হয়ে পড়ে। তাছাড়া রাষ্ট্রের এমনকি আন্তর্জাতিক পরিমণ্লেডও ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাপক হারে র‌্যাগিং নামক কুপ্রথা চালু রয়েছে, যার মাধ্যমে মেধাবী ও নিরীহ ছাত্রছাত্রীদের নির্মমভাবে অত্যাচার করে হত্যা করা হচ্ছে। কতটা অমানবিক, পাষণ্ড হলে অমানুষগুলো র‌্যাগিংয়ের নামে পাশবিক অত্যাচার করে নির্মমভাবে মানুষ মেরে ফেলতে পারে! বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনা মনে হলে আজো সেদিনের মতো একইভাবে জাতির টনক নড়ে যায়। সম্প্রতি একের পর এক ঘটে যাওয়া ধর্ষণ নামক সর্বনাশা ঘটনাগুলো জাতিকে বীভৎসভাবে ভাবিয়ে তুলছে। কতটা বর্বর, অসভ্য, মূর্খ ও মানসিক প্রতিবন্ধী হলে তারা এরকম ঘৃণিত কাজ করতে পারে তা বিবেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ। যারা এসব কাজ করছে তারা টেরও পাচ্ছে না কতটা নিকৃষ্ট কাজ করছে। কারণ একটাই তাদের মাঝে নেই কোনো মনুষ্যত্ব, নেই কোনো মানবিক মূল্যবোধ। মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের ফলে সমাজে নিষ্ঠুর ও অশ্লীল কাজগুলোর পুনরাবৃত্তি ক্রমবর্ধমান হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার দরুন দেশ ও জাতিকে আজ এত বড় সংকটাপন্ন অবস্থার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। বিশ্বের দরবারে মুখ দেখানো আজ বড়ই কঠিন পরিস্থিতি হয়ে দাঁড়িয়েছে।
অপরদিকে একজন মানুষ যদি নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন হয় তাহলে তার জীবন হয় সহজ, সুন্দর ও আলোকিত। তাই সমাজের একটা মানুষ ও যেন অমানুষ না হয় প্রত্যেকটি পরিবারকে অনুরোধ করব, ছোটবেলা থেকেই আপনার সন্তানকে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলুন। সন্তান সন্ত্রাস, জঙ্গি অমানুষ হোক তা কখনো কোনো বাবা-মার কাম্য নয়, তবু যদি এমনটি হয়ে যায় তাহলে তাকে নিয়মিত কাউন্সিলিং করুন, তাকে ঘৃণা না করে বুঝিয়ে সুপথে ফিরিয়ে আনার আপ্রাণ চেষ্টা করুন। তার মাঝে মনুষ্যত্ববোধ জাগিয়ে তুলুন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

নকি