কাঠ পাচার বন্ধে সক্রিয় পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগ

আগের সংবাদ

লেমিনেটিং পোস্টার লাগাতে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

পরের সংবাদ

দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ২২, ২০২০ , ১:১২ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশে দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট (ই-পাসপোর্ট) উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২২ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী  ই-পাসপোর্ট বিতরণ কার্যক্রম ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনার উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তার নিজস্ব  ই-পাসপোর্টটি তুলে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

ই-পাসপোর্ট উদ্বোধনের সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১১৮টি দেশে ই-পাসপোর্ট সেবা চালু রয়েছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ১১৯তম। দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশই প্রথম ই-পাসপোর্ট সেবা চালু করেছে। আমরা চাই বাংলাদেশে উন্নত হবে, সমৃদ্ধশালী হবে আত্মমর্যাদাশীল জাতি হবে। সেভাবেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারি সে লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করছি।

তিনি বলেন, ২০১৫ সালের ২৪ নভেম্বর বাংলাদেশের জনগণের জন্য আমরা মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট দিতে সক্ষম হই। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে থেকে আগামী ১০ বছরের জন্য ই-পাসপোর্ট প্রদানের পদক্ষেপ নিয়েছি। আমি ধন্যবাদ জানাই, আমাদের ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যে তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলেই একেকটা নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আসছে। এবং তারা সেটা কার্যকর করতে পারছেন। তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে আমরা একটা উন্নত মর্যাদার রাষ্ট্রে পরিনত করব। সেজন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ই-পাসপোর্ট প্রকল্প চালুর ফলে বাংলাদেশে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে।

ই-পাসপোর্ট অতীব জরুরিতে তিন দিনে, জরুরিতে সাত দিনে ও সাধারণ পাসপোর্ট আবেদনের ক্ষেত্রে ২১ দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে। তবে পুরোনো অথবা মেয়াদোত্তীর্ণ পাসপোর্ট রি-ইস্যু করার ক্ষেত্রে অতীব জরুরি পাসপোর্ট ২ দিনে, জরুরি পাসপোর্ট ৩ দিনে ও সাধারণ পাসপোর্ট ৭ দিনের মধ্যে দেয়া হবে।

এমএইচ