আমানত ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

আগের সংবাদ

পাকিস্তান বধের প্রস্তুতি শুরু

পরের সংবাদ

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে সেমিতে বাংলাদেশ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৯, ২০২০ , ৯:৩৯ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবলে শ্রীলঙ্কাকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে মতিন মিয়ার জোড়া গোলে পাকির আলির শিষ্যদের হারিয়েছে জেমি ডের শিষ্যরা। তৃতীয় গোলটি করেন মোহাম্মদ ইব্রাহিম। এক জয় ও এক হারে ৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে সেমিফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেছে স্বাগতিকরা। লঙ্কানদের বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের টানা পঞ্চম জয়। আগামী ২৩ জানুয়ারি ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ পূর্ব আফ্রিকার দল বুরুন্ডি।

জিতলে সেমিফাইনাল, হারলে বাদ আর ড্র করলে টাইব্রেকার- এমন এক কঠিন সমীকরণের সামনে লঙ্কানদের মোকাবিলা করে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। গতকাল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে টিকে থাকার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি দেখতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক দর্শক উপস্থিত হন। পশ্চিম গ্যালারির পুরোটাই ছিল দর্শকে ঠাসা। সমর্থকরা বাদ্য-বাজনা নিয়ে ‘বাংলাদেশ’ ‘বাংলাদেশ’ স্লোগানে মুখরিত করে রাখে। ইনজুরির কারণে এ ম্যাচ খেলতে পারেননি অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া। তাতে সুযোগ মেলে তরুণ মিডফিল্ডার মানিক হোসেন মোল্লার। অভিষেক ম্যাচে মাঝমাঠে ভালোই সার্ভিস দেন চট্টগ্রাম আবাহনীর এ মিডফিল্ডার। মানিকের বাড়িয়ে দেয়া বল থেকেই এগিয়ে যাওয়া গোলটি করেন মতিন। জামালসহ প্রথম ম্যাচের একাদশ থেকে জেমির ৪ পরিবর্তনের দলটি দর্শকদের মাতিয়েই রাখে। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে বাইরে জামাল ভুঁইয়া, ফ্লুতে আক্রান্ত ইয়াসিন খান। আর রায়হান হাসান ও মামুনুল ইসলামকে বাইরে রেখে মানিক হোসেন মোল্লা, বিশ্বনাথ ঘোষ, রিয়াদুল হাসান রাফি ও মাহবুবুর রহমান সুফিলকে নামান কোচ। বদলে যাওয়া দলটি শুরু থেকে চড়াও হয়ে খেলতে থাকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। দলের ফরমেশনেও পরিবর্তন আনেন বাংলাদেশ কোচ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জেমি ডে খেলান আক্রমণাত্মক ফুটবল। প্রতি আক্রমনভিত্তিক ফরমেশন ৪-১-৪-১ থেকে সরে এসে বাংলাদেশ খেলে আক্রমণাত্মক ৪-৪-২-১ ফরমেশনে।

ম্যাচের শুরুর দিকে ৪ মিনিটের সময় মাথায় আঘাত পেয়ে ব্যান্ডেজ নিয়ে খেলেছেন রিয়াদুল হাসান। প্রতিপক্ষের সঙ্গে সংঘর্ষে মাথা ফেটে যায় এই ডিফেন্ডারের। বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ ১০ মিনিটের সময় প্রথম সুযোগ পায়। তবে ইব্রাহিমের ক্রসে সাদ উদ্দিন লক্ষ্যে শট নিতে পারেননি। দশম মিনিটে মোহাম্মদ ইব্রাহিমের ক্রসে সাদ উদ্দিনের হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ার ৭ মিনিট পর টুর্নামেন্টে প্রথম গোলের দেখা পায় বাংলাদেশ। মানিকের বাড়ানো বল বাঁ পায়ে দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডান পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন মতিন মিয়া। তার একটু পর মতিনের আরেকটি প্রচেষ্টা লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়নি। খেলার ২১ মিনিটে স্বাগতিকদের আরেকটি দারুণ সুযোগ নষ্ট হয়। ডান দিক দিয়ে একক প্রচেষ্টায় গোল করতে গিয়ে গোলরক্ষকের গায়ে বল মারেন ইব্রাহিম। বাঁ দিকে তখন ফাঁকায় ছিলেন সুফিল।

বিরতির পরও বাংলাদেশ ছিল আক্রমণাত্মক মেজাজে। ৫১ মিনিটে সোহেল রানা বক্সে ঢুকে ক্রসবারের ওপর দিয়ে বল মারেন। মাঝে শ্রীলঙ্কাও গোল শোধের চেষ্টা করেছে। কিন্তু সফল হতে পারেনি। ৫৮ মিনিটে জোহার মোহাম্মদ জারওয়ানের শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে গেলে শ্রীলঙ্কার হতাশা বাড়ে। ২ মিনিট পর সুফিলের পরিবর্তে মামুনুলকে নামান জেমি ডে।
এর ৪ মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে বাংলাদেশ। একক প্রচেষ্টায় দুর্দান্ত গোল করেন মতিন। মাঝ মাঠ থাকা জুদে সোপানের কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে বাঁ-দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা ফরোয়ার্ড ঝড়ো গতিতে ঢুকে পড়েন বক্সে। এরপর আগুয়ান গোলকিপারকে কাটিয়ে নিখুঁত টোকায় বল জালে জড়ান।
৭০ মিনিটে সোহেল রানার শট গোলকিপার ঝাঁপিয়ে রুখে না দিলে ব্যবধান তখনই ৩-০ হয়ে যেত। তবে সেটি হয়েছে ৮৩ মিনিটে। মানিকের পর এই ম্যাচে আরেক অভিষিক্ত রাকিব হোসেনের পাস থেকে আলতো টোকায় গোল করেছেন ইব্রাহিম।

এই ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা ডিফেন্ডার তপু বর্মণ দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে (লাল কার্ড) মাঠ ছাড়েন। তবে ১০ জনের দলে পরিণত হয়েও বাংলাদেশ ঝিমিয়ে পড়েনি, আক্রমণাত্মক মেজাজেই শেষ করেছে ম্যাচ। এর আগে ফিলিস্তিন ও বুরুন্ডি শেষ চারে নাম লিখিয়েছে। আজ সিসেলস ও মরিশাসের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শেষ হবে গ্রুপ পর্ব।

নকি