ফেব্রুয়ারিতে ইতালি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

আগের সংবাদ

৬ মাসে প্রণোদনা ২৫০ কোটি টাকা

পরের সংবাদ

হকারের দৌরাত্ম্য বাড়ছে বাণিজ্যমেলায়

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২০ , ১২:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২০ , ১২:০৫ অপরাহ্ণ

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার বিদায়ের সুর ঘনীভূত হচ্ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে ক্রেতা-দর্শনার্থীর আনাগোনা। আর শেষ সময়ে হরেক রকমের পণ্য আর ছাড়ের অফারে জমে উঠেছে মেলা। মেলায় অনেক প্রতিষ্ঠান আবার নিজেদের পণ্য প্রদর্শন করছে রপ্তানি আদেশ পাওয়ার উদ্দেশ্যে। তবে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা হলেও দেশীয় হকারের চলাচল যেন বন্ধ হচ্ছে না। স্টল ও প্যাভিলিয়নের মাঝখানে খালি জায়গা কিংবা কোনো স্টলের কোলঘেঁষে পণ্য পসরা সাজিয়ে বসেছেন হকাররা। মেলার ভেতরে প্রবেশ রয়েছে জুতা সেলাই, সিগারেট বিক্রেতারও। আর এতে মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীরা ভীষণ বিরক্ত। বাণিজ্য মেলা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

দর্শনার্থীদের অনেকেই বলছেন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার সঙ্গে দেশের সুনাম জড়িত। এখানে হকার প্রবেশ করা মানে পরিবেশ নষ্ট হওয়া। অন্যদিকে মেলা কর্তৃপক্ষ বলছে, আমাদের নজরদারি রয়েছে সর্বদা। এরপরও কোনো হকার যদি মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করে তবে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার স্বার্থ রক্ষায় কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে ভিআইপি গেট দিয়ে প্রবেশ করে হাতের বামপাশ অর্থাৎ ফুড জোন এলাকার আশপাশ, ওসমানী উদ্যানের দেয়াল ঘেঁষে গড়ে ওঠা স্টলের পাশে হকার বেশি চোখে পড়ছে। দেখা যায় জুতার কারিগর জুতা সেলাইয়ে ব্যস্ত রয়েছেন, কেউ ফেরি করে সিগারেট বিক্রি করছেন, কেউবা স্টল বা প্যাভিলিয়নের মাঝখানে পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন। তবে ক্যামেরা দেখলে, কিংব মোবাইলে ছবি তুলতে গেলে আড়ালে চলে যাচ্ছেন হকাররা।

কীভাবে মেলায় হকাররা প্রবেশ করেছেন এ বিষয়ে তারা কিছু না বললেও একটি সূত্র বলছে, মেলার ফটক উন্মুক্ত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্টলের মালামাল নিয়ে প্রবেশের সময় এসব হকার তাদের মালামাল নিয়ে মেলায় প্রবেশ করেন। মেলা কর্তৃপক্ষের চোখ এড়িয়ে এভাবেই তারা মেলায় প্রবেশ করে থাকেন। অনেকেই আবার দর্শনার্থী সেজে মেলায় প্রবেশ করে পণ্য বিক্রি করেন। দর্শনার্থীদের একটি অংশ এসব হকারের পণ্য কিনলেও সিংহভাগই এ বিষয়ে বিরক্তি দেখিয়েছেন। তাদের মতে, দেশের মধ্যে আন্তর্জাতিক মেলা এটি। এর সঙ্গে দেশের সুনাম জড়িত আছে। এখানে হকার প্রবেশ করলে এ মেলা আর ফুটপাতের দোকানের মধ্যে পার্থক্য কোথায়।

মেলা প্রাঙ্গণে কথা হয় ঘুরতে আসা দর্শনার্থী আবুল কালাম আজাদের সঙ্গে। তিনি ভোরের কাগজকে বলেন, বাণিজ্য মেলা বলতে দেশের মান-সম্মান এর সঙ্গে জড়িত থাকে। এখানে অনেক বিদেশি ক্রেতা-দর্শনার্থী থাকেন। তাদের কাছ থেকে দেশীয় উদ্যোক্তারা অনেক রপ্তানি আদেশ পেয়ে থাকেন। তবে হকার প্রবেশ করলে বিদেশিরা বিষয়টা ভালোভাবে নেবে না। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ নেয়া দরকার।

মেলা কর্তৃপক্ষ বলছে, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার স্বার্থ রক্ষায় কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করছি। মেলার পরিবেশ নষ্ট হয় এমন কোনো কাজ করা যাবে না, হকারতো প্রবেশ করতেই পারবে না। তবে যারা প্রবেশ করেছে বা তাদের প্রবেশে কেউ যদি উৎসাহ দেয় তাহলে সংশ্লিষ্ট সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়