ভারতে বাংলাদেশ বেতারের সম্প্রচার শুরু

আগের সংবাদ

শ্রীনগরে এক রাস্তার ইটে তৈরি হল অন্য রাস্তা 

পরের সংবাদ

সংসদ থেকে ওয়াকআউট করলো বিএনপি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০২০ , ৮:৪১ অপরাহ্ণ

গণতন্ত্রের স্বার্থে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ করার নিশ্চয়তা না পাওয়া এবং বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও দলটির বিরুদ্ধে অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্য রাখার অভিযোগ তুলে দলনেতা হারুনুর রশীদের নেতৃত্বে বিএনপির সংসদ সদস্যরা ওয়াকআউট করেন। এটাই চলতি একাদশ সংসদে বিএনপির প্রথম ওয়াকআউট। মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারী) মাগরিবের নামাজের বিরতির পর সংসদ থেকে ওয়াকআউট করেন তারা।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাড়িয়ে হারুনুর রশীদ বলেন, এই নির্বাচন কি আসলেই নির্বাচন হবে? এতে কি জনগণ ভোট দিতে পারবে? এই নির্বাচনের পরিবেশ কি সরকার নিশ্চিত করতে পারবে? এই বিষয়ে দায়িত্বশীলদের থেকে উত্তর পেতে চাই। এই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করা এবং নির্বাচনকে নিয়ে যে সহিংসতা চলছে তা বন্ধের দাবি করছি। না করলে আমরা সংসদ থেকে ওয়াক-আউট করবো।

হারুনুর রশীদের বক্তব্যের পর সরকার দলের সিনিয়র সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ ও আমির হোসেন আমু ফ্লোর নিয়ে তার পাল্টা জবাব দেন। এসময় সরকার দলের এই দুই নেতা প্রসঙ্গক্রমে অতীতে বিএনপি সরকারের আমলে অনুষ্ঠিত সংসদ উপনির্বাচনসহ নানা নির্বাচনে অনিয়মের কথা তুলে ধরেন। তাদের বক্তব্যের পর এমপি হারুন আবারও ফ্লোর চাইলে স্পিকার তা নাকচ করে দেন। এ সময় হারুনুর রশীদ মাইক ছাড়াই কথা বলেন। সরকারি দলের সদস্যরা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে পাল্টা বক্তব্য দিতে গিয়ে এই প্রসঙ্গের বাইরে গিয়ে কথা বলেছেন এমন দাবি করে তারা ওয়াকআউট করেন।

ওয়াক আউটের বিষয়ে জানতে চাইলে এমপি হারুন বলেন, সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নিচ্ছে। দুইজন সিনিয়র নেতা নির্বাচনে সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করছেন। এ প্রেক্ষাপটে সংসদে সিটি কপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা তা জানতে চেয়েছি। কিন্তু তারা আমার বক্তব্যের জবাব না দিয়ে অপ্রসাঙ্গিক বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। তারা বেগম খালেদা জিয়া ও দলটি সম্পর্কে অযাচিত মন্তব্য করেন। তখন আমরা অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে ওয়াকআউট করেছি। আমরা নির্বাচন সুষ্টু ও অবাধ হবার নিশ্চয়তা চাই।

নকি