খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর বিক্ষোভ

আগের সংবাদ

পূজা-ভোট একসঙ্গে কোনো সমস্যা নয়: ইসি সচিব

পরের সংবাদ

বিলের বাঁধ কাটায় উত্তেজনা, বীজতলা প্লাবিত

আতিকুল ইসলাম চৌধুরী, নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০২০ , ৬:৩৯ অপরাহ্ণ

নবাবগঞ্জ উপজেলার জাতীয় উদ্যান আশুরার বিলের বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়ায় বিলের দু’পাড়ের বাসিন্দাদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সোমবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে কে বা কারা বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়। এতে ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বোরোচাষীদের বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে খবর পাওয়ার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. নাজমুন নাহার, দিনাজপুর বিএডিসি নির্বাহী প্রকৌশলী (ক্ষুদ্র সেচ) সৈয়দ সাবিহা জামাল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আল মামুন, নবাবগঞ্জ বন কর্মকর্তা নিশিকান্ত মালাকারসহ পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কর্মকর্তারা কেটে দেয়া বাঁধ পুনঃনির্মাণ করতে গেলে এক পর্যায়ে এলাকাবাসীর বাধার মুখে পড়েন। উত্তেজিত জনতা আবারো বাঁধ কেটে দেয়। তবে বাঁধ কেটে দেয়ায় বিলে জমানো পানি রাত থেকে উপজেলার করতোয়া নদী দিয়ে বাড়তি পানি প্রবাহিত হয়। এতে উভয় পাশের অন্তত ১৫ কিলোমিটার এলাকার বোরো বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

গেল ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে বছরে ১৮ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে বিলের পানি ধরে রাখার জন্য বৃহত্তর বগুড়া ও দিনাজপুর জেলা ক্ষুদ্র সেচ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সাবমারর্জড ওয়্যার (ক্রসড্যাম) নির্মাণ করে বিএডিসি। তবে ক্রসড্যাম নির্মাণের শুরু থেকেই আপত্তি জানিয়ে আসছিলেন স্থানীয়রা।

আশুরার বিলের বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়ায় হু হু করে পানি বের হচ্ছে। ছবি: প্রতিনিধি।
আশুরার বিলের বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়ায় হু হু করে পানি বের হচ্ছে। ছবি: প্রতিনিধি।
আশুরার বিলের বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়ায় হু হু করে পানি বের হচ্ছে। ছবি: প্রতিনিধি।
আশুরার বিলের বাঁধের দুই স্থানে কেটে দেয়ায় হু হু করে পানি বের হচ্ছে। ছবি: প্রতিনিধি।
এনএম